যে কারণে কর্মক্ষেত্রেও নারীর কাজের মূল্যায়ন হয় না

 images.jpg-2শারমিন আকতারঃ

সারাদিন সংসারের টুকিটাকি কাজে ব্যস্ত থাকার পরও দিন শেষে বাড়ির কর্তার কাছ থেকে অনেক নারীকে শুনতে হয় কি কর সারাদিন? খাও আর ঘুমাও ! সেরকম অফিসেও নারীর কাজের মূল্যায়ন খুব একটা হয় না । আর হলেও খুব কম হয় । একটা নারীর কাজ তখনই মূল্যায়ন পায় যখন সে পুরুষের চেয়ে দ্বিগুণ বা তিনগুণ কাজ করতে পারে । হা এটা স্বীকার করি যে শারীরিক পরিশ্রমের কাজ পুরুষরা নারীর চেয়ে বেশি করতে পারে । যেমন বড় বড় বস্তা টানা, ইট ভাঙ্গা, পা চালিত রিক্সা চালানো ।  কিন্তু এমন কাজ যেগুলো কোন কায়িক পরিশ্রমের কাজ নয় যেমন কম্পিউটারে রিপোর্ট তৈরি, ব্যাংকে আকাউন্ট ওপেনিং, স্কুলে শিক্ষকতা, হাসপাতালে ডাক্তারি, কনসালটেন্সি প্রতিষ্ঠানে কাউন্সেলিং সহ নানা বিষয়ে নারীরা পুরুষের চেয়ে এগিয়ে থাকলেও পুরুষরা সেটা স্বীকার করতে চায় না ।

একটা পুরুষ সারাদিন ব্যাংকে বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বা হাসপাতালে  থেকে যে পরিশ্রম করে একটি নারীও সেই একই পরিমাণ পরিশ্রম করে থাকে । শুধু পার্থক্য এইটুকু অফিস টাইম শেষ হওয়া মাত্র নারী বাসায় স্বামী-সন্তানের কাছে ফেরার তাড়া অনুভব করে যেটা কোন পুরুষ করে থাকে না ।  আমি অনেক পুরুষকে দেখেছি যারা অফিস টাইম শেষ করেও অফিসে বসে এমনি আড্ডা দেয় বা সারাদিনের যে কাজ আছে সেটাকেই লেনদি করে সময় অতিবাহিত করে অফিস টাইম পার করে ।

আর নারী বাসায় ফিরবে বলে পুরুষের সম পরিমাণ কাজ নির্ধারিত অফিস টাইমের মধ্যেই শেষ করে থাকে । বাসায় ফেরার জন্য পায়তারা করে । তখন অফিসের কলিগদের কাছে থেকে শুনতে হয় “আপু বেতন তো কম নেন না, তাহলে আগে যেতে চান কেন?” মনে হয় নারী হওয়ায় পুরুষের চেয়ে নারীর বেতন কম হলে পুরুষরা খুব খুশিই হত ।

নারীদের কাজের যদি সঠিক মূল্যায়ন করা হয় তাহলে একটা নারী পুরুষের চেয়ে অধিক যত্ন ও মনোযোগ দিয়ে সেই কাজ বেশি ভাল ভাবে করে থাকে বা করতে পারে । এটা একটা প্রাকৃতি প্রদত্ত বিষয় যে নারীর প্রতি পরিবারের মানুষগুলো বিশেষ করে স্বামী,সন্তান যত্ন ও ভালবাসার জন্য বেশি নির্ভরশীল হয়ে থাকে । তাই তাদের পরিবারের প্রয়োজনে অফিসের কর্তৃপক্ষ যদি শুভ দৃষ্টি দেয় তাহলে তার যেটুকু দায়িত্ব সেটুকু সে অফিস টাইমের মধ্যে একজন পুরুষের চেয়ে অধিক বেশি মনোযোগ, যত্ন এবং দক্ষতা কাজে লাগিয়ে সুন্দরভাবে কাজ সম্পাদন করতে পারবে । তাই নারীর অফিস টাইম শেষে অফিস থেকে বাসায় ফেরার তাড়া এবং পরিবারের মানুষের অসুস্থতার সময় দুই-একদিন অফিস ছুটি নেবার কারণে তাদের সারাদিনের সমস্ত কাজকে নারী হবার দায়ে অবমূল্যায়ন না করে যদি তাদেরকে উৎসাহিত করা হয় তাহলে পরিবার ও সমাজকে নারী অনেক কিছু দিতে পারে ।

লেখকঃ সম্পাদক, মহীয়সী

Comment

Comment

   
ই-মেইলঃ mohioshi@outlook.com
ফেসবুকঃ www.facebook.com/mohioshibd
মোবাইলঃ ০১৭৯৯৩১৩০৭৮, ০১৭৯৯৩১৩০৭৯
ঠিকানাঃ ১০/৮, আরামবাগ, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০
কপিরাইট ©  মহীয়সী