মেয়ে তোমার এত কষ্ট করে পড়াশুনা করে লাভ কি?

নুসরাত সুলতানা লিমাঃ

মেয়ে তোমার এত কষ্ট করে পড়াশুনা করে লাভ কি? এত ডিগ্রী দিয়ে কি হবে যদি সুন্দরী ই না হও। পড়ালেখাকে নয় রূপচর্চাকে কর বাধ্যতামূলক। সেটা অনেক কাজে দিবে। আল্লাহ প্রদত্ত সৌন্দর্য না থাকলেও ঘষে মেজে সুন্দরী হও। তাহলে পাত্রি দেখার সময় তোমাকে আর কেউ পোস্টমর্টেম করবে না। এক পলকে তোমাকে পছন্দ করে ফেলবে আর্মি অফিসার, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, বিজ্ঞানী, আমলা। সুশীলরা বলে চেহারা নয় মন ই বড়। কিন্তু বলতে পারেন কতজন তা মানেন। এই পৃথিবীর সবাই আগে দর্শনধারী পরে গুনবিচারী এই কথায় বিশ্বাসী। ইন্টারভিউ বোর্ডে একজন অসুন্দর মেয়েকে অনেক বেশী কেতাবী অভিজ্ঞতা দেখাতে হয় একজন সুন্দরীর চেয়ে। এমন কি শিক্ষকরাও পক্ষপাতদুষ্ট হয়ে যান সুন্দরিদের প্রতি।

মেয়ে অত ডিগ্রী দিয়ে কি হবে। পার্লারে যাও, জিমে যাও।আপাদমস্তক সুন্দরী হও। মানুষের কথা শুনোনা। মন কেউ বোঝেনা। এসব কথার কথা।

যে জিনিসে আমাদের কোন হাত নেই তাতেই আমাদের মোহাচ্ছন্নতা, আর যেটা অর্জন করি তা অত্যন্ত গৌণ। এ ব্যাপারটা আমাকে খুব পোড়ায়। সেদিন উচ্চশিক্ষিত এক ব্যক্তি অন্য একজনকে বলছেন, আপনার মেয়েরা মা আ শাল্লাহ যা সুন্দর, বিয়ে দিতে বেগ পেতে হবেনা, আপনার তেমন খরচ ও করতে হবেনা। আবার আমার এক আত্মীয়ের অভিযোগ দেখতে অসুন্দর বলে তার স্বামী তাকে নিয়ে বের হতে চায়না। কি সমাজে আমরা বাস করি ভেবে দেখুন। কিন্তু আমরা তো এও জানি আল্লাহ তার সমস্ত সৌন্দর্য দিয়ে মানুষকে সৃষ্টি করেছেন।

আমার কোন ছেলে নেই। যদি থাকতো তাহলে মেয়েদের পোস্টমর্টেম করতাম না। একটা গুনবতী মেয়েই ঘরে আনতাম।

কাউকে ব্যক্তিগত ভাবে আক্রমনের জন্য আমার এই লেখা নয়। বাস্তব অভিজ্ঞতার আলোকে লিখেছি।

Comment

Comment

   
ই-মেইলঃ mohioshi@outlook.com
ফেসবুকঃ www.facebook.com/mohioshibd
মোবাইলঃ ০১৭৯৯৩১৩০৭৮, ০১৭৯৯৩১৩০৭৯
ঠিকানাঃ ১০/৮, আরামবাগ, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০
কপিরাইট ©  মহীয়সী