ইচ্ছাশক্তি,আত্মসম্মানবোধ, সততা আর টার্গেটের প্রতি লেগে থাকলেই সাফল্য আসবে …

ডাঃ নাসিমুন নাহারঃ 

বহু বহু বহু দিন, মাস পর সত্যিকার অর্থে একটা শুক্রবার- একটা weekend কাটাচ্ছি !আমার দখিনা বারান্দায় আয়েস করে বসে গান শুনে আর হেমন্তের রোদে জীবনের গল্প লেখার চেষ্টা করে।আহ কি শান্তি ……

টিকে থাকার জন্য শুক্রবারেও কই কই ছুটেছি বাচ্চাটাকে কোলে নিয়ে ….. চেম্বার,ক্লাস, পার্ট টাইম জব কি না করেছি !
এখন অনেকটাই ধাতস্থ জীবনে।

আজ ডিউটি নেই(যদিও ইমার্জেন্সি হলে দৌড়াতে হবে যখন তখন), ঘর গোছানো, রান্না, বাজার করা, কাপড় গোছান, ধোয়া কিচ্ছু করার নেই।সবকিছুর জন্য নির্দিষ্ট লোক(PCS) আছেন অফিস প্রদত্ত ।যারা এত চমৎকার ট্রেইনিং প্রাপ্ত যে আমিই অস্বস্তিতে পড়ে যাচ্ছি অফিস থেকে ফিরে নিজের পরিপাটি গোছানো বসতবাড়ি দেখে।আলহামদুলিল্লাহ ।

আমি সাধারণত খুব সচেতনভাবে আমার কোন লেখাতে “আমি কষ্টে আছি” এই জাতীয় নেতিবাচক প্রভাব মুক্ত হয়ে লিখে থাকি।

বরং যখন আমি ভালো থাকি তখন তা ভীষণভাবে প্রকাশ করে লেখার চেষ্টা করি।কারন–আমি নিজের ব্যাপারে শেয়ারিং স্বভাবের নই।আমি বিশ্বাস করি আমার খারাপ সময়গুলো শুধুই আমার।আমাকেই তা পার করতে হবে যেকোন উপায়ে।হুমম মানসিক চাপ মুক্ত থাকতে এক্সপার্ট ওপেনিয়ন নেই।তবে তা পুরোপুরিই প্রফেশনাল স্টাইলে।খোশ গল্প করতে করতে না।আমি সিক্রেট শেয়ার করি না।কারন আমি জানি– মানুষ মোটামুটি ভয়াবহ রকম স্বার্থপর প্রাণী।কোনভাবে দুর্বলতা জেনে ফেললে জীবনটাকে হেল বানিয়ে ছাড়বে।তাই যা যা শেয়ার করব বলে ভাবি তা ডায়েরি লেখার মতো করে ফেবুতে/ব্লগে লিখে ফেলি।ওপেন সিক্রেট হিসেবে।এতে করে মন হালকা হয় এবং খানিকটা হাবিজাবি লেখালেখির চর্চাও হয় বৈকি।

আমার ভালো সময়গুলো সবার সাথে শেয়ার করার পেছনে একটা উদ্দেশ্য আছে আমার।
আমার মতো অনেক মেয়ে আছে আশেপাশে;
খুব সাধারণ এই মেয়েগুলোর জীবনে কিছু সমস্যা আসে যা তাদেরকে প্রচন্ড কষ্ট দিতে থাকে।তারা হতাশ হতে শুরু করে।ধীরে ধীরে জীবনের প্রতি বিতৃষ্ণা নিয়ে বেঁচে থাকাটাকে যন্ত্রণাময় মনে করে।আমি চাই তারা অন্তত জানুক খুব কাছের কমন কোন মেয়ে ঠিক এই খারাপ সময়গুলো পার হয়ে এখন বেশ ভালো আছে। এই যে ভালো থাকা এই ভাইবটা ছড়িয়ে পড়ুক অনেকের মাঝে।আমার মতো খুবই সাধারণ একটা মেয়ে যদি জীবনের চূড়ান্ত বিপর্যয় থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে বাচ্চা নিয়ে একা লেখাপড়া শেষ করে ডাক্তার হতে পারে, পোস্ট গ্রাজুয়েট হতে পারে, জব করে নিজের সম্মানজনক আইডেন্টিটি তৈরি করতে পারে তুমি/তোমরা/আপনারাও অবশ্যই পারবেন।প্রয়োজন শুধু প্রচন্ড ইচ্ছাশক্তি ,আত্মসম্মানবোধ , সততা আর টার্গেটের প্রতি লেগে থাকা।

সত্যিই ভালো থাকা ছড়ায় কিন্তু।
যখনই কোন লেখা পোস্ট করি কত মেয়ে যে ইনবক্স করতে থাকেন।যদিও আমি physically এখন পর্যন্ত কিছুই করতে পারি না তাদের কষ্ট কমানোর জন্য।তবুও জেনে ভালো লাগে যখন কেউ মেসেজ করে– মিম্ মি চার বছর পরে আবার লেখাপড়া শুরু করলাম। তোমার লেখাগুলো পড়ে ভীষন সাহস পাচ্ছি।আমিও পারব।লেখাপড়া শেষ করে চাকরি করব।তোমার মত আমারও একটা নিজস্ব ঘর হবে, পরিচয় হবে।আমিও ভালো থাকব।তুমি কি তখন একদিন আসবা আমার বাসায় এক কাপ চা খেতে ?

—–এমন অসংখ্য মেসেজে ইনবক্স ভরে যাচ্ছে।
নিশ্চয়ই আসব আপু।
U make me cry…….

Comment

Comment

   
ই-মেইলঃ mohioshi@outlook.com
ফেসবুকঃ www.facebook.com/mohioshibd
মোবাইলঃ ০১৭৯৯৩১৩০৭৮, ০১৭৯৯৩১৩০৭৯
ঠিকানাঃ ১০/৮, আরামবাগ, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০
কপিরাইট ©  মহীয়সী