ছোটলোকি করাটাই আমাদের সিস্টেম!!!

সাফাকাত রাব্বি অনিকঃ 

শিক্ষিত, সুশীল, ধনী বাঙ্গালিকে জিজ্ঞেস করলাম, বাঙালি তোমার বাসার কাজের লোক কি এখনও মাটিতেই বসে? তোমার বউ বা মা কি তাদের আলাদা আলাদা তরকারী রান্না করে খেতে দেয়? বাঙালি বলে, “আরে দেশের বাড়িতে থাকলে তো এরা না খেয়েই থাকতো। এইটাই আমাদের দেশের সিস্টেম”।

জিজ্ঞেস করলাম, তোমার ড্রাইভার কি দাওয়াতে গেলে তার মালিকের পাশে একই টেবিলে বসে খেতে পারে? বাঙালি বলে, “আরে আমার গাড়িটা চালায় বলে তো প্রতিদিন এরা দাওয়াতের পোলাও কোর্মা খাচ্ছে, দেশের বাড়িতে থাকলেতো পচা পান্তা খাইতো। এইটাই আমাদের সিস্টেম”।

জিজ্ঞেস করলাম ৪৭ বছর আগের বিহারী রেফুজি শিশু, কিংবা ২৭ বছর আগের রোহিঙ্গা রেফুজি শিশু, যারা বাংলাদেশেই বড় হয়েছে, তাদেরকে কি তুমি বাংলাদেশি হিসেবে মেনে নিয়েছো? জার্মানিতে কিংবা আমেরিকায় কিন্তু এরকম শিশুকে নিজের দেশের মানুষ হিসেবেই আইনে ধরা হয়। বাঙালি বলে, “আরে ভাই কোথায় জার্মানি আর কোথায় বাংলাদশ। আমরা না থাকলে এই রেফুজির বাচ্চা তো মইরাই যাইতো। ক্যাম্পেই ৪০ বছর পার করছে তো কি হইছে, মরে তো নাই। এইটাই আমাদের সিস্টেম “।

জিজ্ঞেস করলাম তোমার সমাজে যে আশ্রয় নিয়েছে, তাকে ওয়ার্ক পার্মিট, মেয়ে রেফুজি হলে দেশের পুরুষকে বিয়ে করার পার্মিট, এমনকি রেফুজি হিসেবে আলাদা পাস্পোর্ট দিতে ক্ষতি কি? জর্দান, তুরুষ্ক, ইউরোপে রেফুজিদের এসব অধিকার দেয়া হয়। বাঙালি বললো, “আরে ভাই? কোথায় জর্দান আর কোথায় বাংলাদেশ। আমাদের দেশে রেফুজিদের আমরা এইভাবে আটকায় রাখি জাতীয় স্বার্থে। এইটাই আমাদের সিস্টেম”।

আসলে শিক্ষিত, সুশীল, ধনী বাঙালি তার আজীবনের দেখা ছোট লোকিগুলো করতে করতে আর দেখতে দেখতে এমন হয়ে গেছে যে সে এখন গলা বড় করে বলে ছোটলোকি করাটাই তার সিস্টেম!!

মজার কথা হলো শিক্ষিত , মোটা, ধনী, সুশীল বাঙ্গালি অগাস্ট ২৮ থেকে শুরু হওয়া রোহিঙগা রেফুজি আগমনের শুরুতে চুপচাপ থাকলো। এর পরে বানের জলের মতো রেফুজি ঢুকে যখন মানবিক বিপর্যয় সৃষ্টি করলো, সারা বিশ্বের মিডিয়া যখন দেশীয় মিডিয়ার আগে হাউ কাউ লাগালো, ঠিক তখন বাঙালি সুশীল নতুন গান ধরলো, সে বললো “দেখ সারা বিশ্ব দেখ —- দেখে যা আমরা কতো মহান, ১০ মিলিওন রেফুজী খাওয়াই আর খাওয়া ভাগ করে খাই!! এখন আমাদের পুরুষ্কার না দিয়া যাবি কই? ”

কথা শুনে যারা ইমোশনাল তাদের অনেকে গর্বে, সুখে, খুশীতে ফুলে ফেঁপে উঠলেন।

আর অন্য দিকে আমরা যারা এনালিটিকাল, তারা এখন আশা করছি রোহিঙ্গার সাথে নাইবা পারুক, অন্তত বাসার বাঙালি কাজের লোক কিংবা ড্রাইভারের সাথে খাওয়া ভাগ করে খাওয়া নিশ্চয়ই বড়লোক সুশীল বাঁঙালি শুরু করতে যাচ্ছে শীঘ্রই। পুরুষ্কারের ব্যাবস্থা না হয় আমরা আমরাই করলাম!

Comment

Comment

   
ই-মেইলঃ mohioshi@outlook.com
ফেসবুকঃ www.facebook.com/mohioshibd
মোবাইলঃ ০১৭৯৯৩১৩০৭৮, ০১৭৯৯৩১৩০৭৯
ঠিকানাঃ ১০/৮, আরামবাগ, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০
কপিরাইট ©  মহীয়সী