ভালবাসা কি শুধুই এক দিনের জন্য?

ফাহমিদা খানমঃ 

আজকাল আমরা সবাই মেকি ভালবাসায় মজেছি, একদিনের ভালবাসা প্রকাশ করার জন্য কি মাতামাতি আমাদের! যেনো অন্যদিনগুলোয় আমরা আমাদের প্রিয় মানুষদের ভালবাসি না!
আধুনিকতার জোয়ারে ভাসার জন্য সে কি প্রাণান্তকর চেষ্টা! নিজের সংস্কৃতি, মুল্যবোধ খুলে প্রগতিশীল হতেই হবে, নিজেকে উজাড় করে দেখাতে হবে আমিও আধুনিকতম! সবাই শো-অফ করতে ব্যস্ত। আচ্ছা আমাদের আগের জেনারেশনে কি ভালবাসা ছিলো না? ভালবাসা কি দেখানোর বা বলে বেড়ানোর মতো জিনিস? আমি যদি কাউকে ভালবাসি তাকে সোনার কাঠি, রুপোর কাঠির ছোঁয়া দিয়েই প্রকাশ করতে হবে! কোন কথা না বলেও কিন্তু ভালবাসা প্রকাশ করা যায়, এটা আসলে অনুভূতির ব্যাপার। কিছু মানুষকে দেখি সংগী বা সংগীনির ভালবাসা ঢোল করে পিটিয়ে বেড়ায়। আচ্ছা ভালবাসা কি বলে বেড়াবার মতো হাল্কা জিনিস!


কিছু ভালবাসা মনের গহীন ঘরে গভীরে লুকিয়ে থাকে, ব্যবহারিক জীবনে না আসলে আমরা টেরই পাইনা। সবচেয়ে নিখাদ, স্বার্থহীন ভালবাসা হলো সন্তানের প্রতি মা-বাবার ভালবাসা। মাঝেমধ্যে সঙ্গী,সঙ্গিনীকে মুল্য দিতে গিয়ে অনেকেই সেটাকে অবমুল্যায়ন করে বসে। সময়ের দাবী বলে যতোই চেঁচাই না কেন এটা কিন্তু স্বাভাবিকতা না। ভালবাসায় ব্যালেন্স যেমন জরুরী, ছাড় দিতে শিখাটা আরো বেশী জরুরী। অতি ভালবাসায় অন্ধ হয়ে যে বাবা-মা সন্তানকে বলির পাঁঠা বানিয়ে বসেন —–সেটাও ঠিক নয়। সব ক্ষেত্রেই ব্যালেন্স দরকার।


ক্ষণস্থায়ী মোহকে প্রাধান্য দিতে গিয়ে আজকাল অনেকেই নিজেকে সস্তাদর করে ফেলে —-এটাও একদম ঠিক নয়। আমি কি আধুনিকতার বিপক্ষে!! নাহ তবে আধুনিকতার জোয়ারে কচুরিপানার মতো স্রোতে নিজেকে ভাসাতে রাজি নই। নিজের সংস্কৃতি, ধর্মীয় মুল্যবোধ খুলে নিজেকে সস্তা করার দলে আমি নই, তাতে যদি আমাকে ব্যাকডেটেড, ক্ষ্যাত তকমা জুড়ে দেন —–মাথা পেতেই নিবো। আজন্ম সংস্কারমালা খুলে আধুনিকা হতে পারবোনা। আমি বিশ্বাস করি ভালবাসা যোগ্যতায় হয়, জোর করে সহানুভূতি হয়। ভালবাসা ভিন্ন ব্যাপার।


দেশে তখন ভ্যালেন্টাইন শব্দটা নতুন এসছে, নব বিবাহিতা বউকে সারপ্রাইজ দেবার জন্য এক ভদ্রলোক নিজ ক্যাম্পাসে পুলিশের হাতে ধরা পড়লো ফুল চুরির অপরাধে। বেরসিক পুলিশ বোঝেনি, ভেবেছে চোর। রাতের অন্ধকারে ফুল চুরি করে সারপ্রাইজ দিতে গিয়েই যতো বিপত্তি! আরেকবার বৌকে মুগ্ধ করার জন্য একজন অফিসের সামনে লাগানো ফুলগাছ থেকে ফুল ছিঁড়ে নিলো, পেছনের জন আরেকধাপ এগিয়ে এসে বড় ডালসহ ফুল ছিঁড়ে নিলো , আমি অধীর আগ্রহে অপেক্ষারত ছিলাম তৃতীয় জনের ——উনি কখন গাছ উপড়ে নিবেন!!!

জয় হোক ভালবাসার। শুধুমাত্র একদিন নয়, সবদিন হোক ভালবাসাময়। ভালবাসার মানুষদের নিয়েই ঘিরে থাকুক আমাদের সবার জীবন।

লেখক ফাহমিদা খানম

ফাহমিদা খানমঃ কথা সাহিত্যিক

১৪/২/১৮

 

Comment

Comment

   
ই-মেইলঃ mohioshi@outlook.com
ফেসবুকঃ www.facebook.com/mohioshibd
মোবাইলঃ ০১৭৯৯৩১৩০৭৮, ০১৭৯৯৩১৩০৭৯
ঠিকানাঃ ১০/৮, আরামবাগ, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০
কপিরাইট ©  মহীয়সী