সেই ৭১’এর যুদ্ধশিশুর কথা বলছি

কাজী রফিকঃ 

সময়টা স্বাধীনতার মাস।আনেক ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত হয় স্বাধীনতা।আমরা কি ভুলে যেতে পারি তাদের কথা।তাই আজ আমি সেই ৭১’এর যুদ্ধশিশুর কথা বলছি।

[কানাডা প্রবাসী মুস্তফা চৌধুরী দীর্ঘদিন থেকে কানাডায় দত্তক নেয়া আমাদের যুদ্ধশিশুদের উপর গবেষনা করেছেন।সেই গবেষনার বইটি গত বছর তিনি আমাকে দিয়েছিলেন। সেখানে পেয়েছি তাদের অনেকের কথা।কানাডায় আমাদের সে যুদ্ধশিশুরা বড় হয়েছে, সংসার করছে,সন্তান আছে। কেমন আছে তারা সংক্ষেপে তাদের একজনের কথা বলছি ]

শিখা………..এ শিশুটি সাতমাসের গর্ভধারনের পর জন্মগ্রহন করেছিলো,১২ মার্চ ১৯৭২সালে ঢাকায়।জন্মের সময় তার ওজন ছিলো ২ দশমিক ৭ কেজি।মাদার তেরেসা শিশুসদনে রেখে যাওয়া হয় তাকে।যিনি রেখে যান তার নাম অজানা থেকে যায়।সদনের সিস্টার মর্গারেট ম্যারি শিশুটির নাম দেন শিখা।শিশুটি অস্বাভাবিক রোগা ছিলো। যার ফলে অনেক বেশি যত্ন নিতে হয়।কানাডা থেকে বাংলাদেশে এলেন ক্যাপুচিনো পরিবার একটি প্রকল্পের কাজে।এ সময় তারা শিখাকে দত্তক নিলেন।শিখার মত ক্ষীণ স্বাস্থ্যের মেয়েকে কেন তারা পছন্দ করলেন জানতে চাইলে তারা বল্লেন,শিখা ছিলো প্রশ্নাতীতভাবে সবচেয়ে সুন্দরী শিশু।তাদের চিন্তা ছিলো দুর্বল শিশুটি নিয়ে বাংলাদেশ থেকে কানাডার দীর্ঘ পথ পাড়ি দেয়া।সবার উদ্বেগ উৎকন্ঠা কাটিয়ে শিশুটিকে নিয়ে তারা পৌঁছে যায় কানাডার মন্ট্রিয়ালে।সেখানে দত্তকের আনষ্ঠানিকতা শেষ করে তারা শিখার নাম দেন,শিখা দীপা মর্গারেট ক্যাপুচিনো। শিখা নামটি শিশু ভবনে সন্যাসিনীর দেয়া ছিলো বলে দত্তক বাবা মা সেটা রেখে দেন।তারা বলেছিলেন বাংলাভাষায় এ নামের অর্থ আগুনের দীফ দরশনীয় রূপ।তাই তারা নামটাতো রাখলেনই,আবার দীপাটাও জুড়ে দেন।
নামের শেষে ক্যাপুচিনো পেয়েছে তার কানাডীয় বাবা মার কাছ থেকে।আনেক যত্নে বড় হতে থাকে শিখা।তারপর……
গড়পড়তা কানাডীয প্রাপ্তবয়স্ক তরুন তরুনির মত শিখাও তার হাইস্কুল ডিপ্লোমার জন্য লেখপড়া শেষ করেনি।ম্যক্সভিল এলিমেন্টারি স্কুল থেকে পড়া শেষ করে শিখা গ্লোনগ্যরি ডিষ্ট্রিক্ট স্কুলে পড়তে যায়।কিন্তু পড়া শেষ না করেই সে স্কূল ছেড়ে দেয।এরপর শিখা বুঝতে পারে জীবনে সামনে এগুতে হলে তাকে হাইস্কুলের ঘাট পেরোতে হবে।তারপর সে হাইস্কুল সমার্থক ডিগ্রি নেয়।পরবর্তীতে সে চাকরি করে অনেকবার চাকরি বদল করে।এতে তার চেনা জানার পরিধিও বাড়তে থাকে।
…….চলবে

 

লেখকঃ সাহিত্যিক ও প্রকাশক, শিখা প্রকাশনী

Comment

Comment

   
ই-মেইলঃ mohioshi@outlook.com
ফেসবুকঃ www.facebook.com/mohioshibd
মোবাইলঃ ০১৭৯৯৩১৩০৭৮, ০১৭৯৯৩১৩০৭৯
ঠিকানাঃ ১০/৮, আরামবাগ, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০
কপিরাইট ©  মহীয়সী