বাবা একটি সংগ্রামের নাম

মোঃরুহুল আমিন

বুকের ভেতর চাপা পড়ে আছে না বলা হাজারো কথা
নিঃশ্বাস জুড়ে শুধু মনের কথাগুলো বলার ব্যাকুলতা,
এই ধরণীর বাস্তবতার সহজ নিয়ম।
তৃতীয় বিশ্বের কোন দেশের জন্যে রীতিমতো যুদ্ধ
সন্তানের ভবিষ্যৎ গড়ার চিন্তায় পেরেশান বাবা
হাসতে ভুলেই গেছেন সেই কবে নিজেই জানেন না!
কঠিন বাস্তবতায় কখন যে মেজাজ রুক্ষ্ম হয়ে গেছে
বাবা নিজেই জানে না!
কঠোর শাসন আর মৌলিক চাহিদা পূরণে
মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার আপ্রাণ চেষ্টা,
সন্তানের আবদারের বিলাসী চাওয়া পূরণে
মুখ ফুটে না বলে না,সামর্থ্যের বাহিরে যে চাওয়া,
কখনো বলতে চান না বাবা,
শুধু একটু সময় চেয়ে নেন,
নিজে নিজে ব্যথার আগ্নেয়গিরিতে জ্বলতে থাকেন
নিদ্রাহীন দুই তৃতীয়াংশ রজনী!
যার উপর এতো দ্বায়িত্ব,এতো কঠিন বাস্তবতা
পরিবারের সকল দ্বায়িত্বসহ সন্তানের শাসন ভার ন্যস্ত
সময়ের পরিক্রমায় নিজের শখের কথা
নিজের চাওয়া পাওয়া একটু সুখের কথাও
বাবা নিজের জন্যে ভাবেন না!
তিনি একজন সন্তানের স্বপ্নদ্রষ্টা
তিনি একজন সন্তানের বিশ্বস্ত নিরাপদ ছায়া
তিনি বাবা তিনি বাস্তবতার সকল প্রতিকূলতাডিঙিয়ে
বিরামহীন সংগ্রাম করে যান দিবানিশি।
সবাই বলে বাবারা একটু কঠিন
বাবারা কঠিন নয়,বাস্তবতা কঠিন করে দিয়েছে
বাবা কাঁদতে পারে না,সহজে ভেঙে পড়ে না
ভেতরটায় সাইক্লোন বয়ে যায়,
তবুও চোখে জল নেই,তাকে যে এগিয়ে যেতেই হবে
সকল বাধা বিপত্তি ডিঙিয়ে হামাগুড়ি দিয়ে হলেও
প্রাণের চেয়ে প্রিয় সন্তানের মুখে হাসি ফুটানোর
নিঃস্বার্থ ভালোবাসা টানে।
সন্তানের মুখে সুখের হাসির মায়াজালে
বাবা সুখ খোঁজে নেন,নীরবে নীবৃত্তে
বাবা জীবন যুদ্ধে একটি নিঃস্বার্থ সংগ্রামী নাম,
সকল বাবার জন্যে ভালোবাসা শ্রদ্ধা সালাম।
১৬/১১/২০২০ইং

আরও পড়ুন