ব্যবচ্ছেদ

মাইনুল ইসলাম আলিফ

আজ নামহীন অপ্রিয় অস্থিরতায় বয়ে গেছে সময়
এমনি করেই দাহ দাহ যন্ত্রণায় কেটেছে বছর।
কিছুটা বিশুদ্ধতায় দূষিত সময়ের আলেখ্য লিখে,
ঝরা বিরহের স্বপ্ন দেখি,
অমাবস্যার অন্ধকারে একা।
প্রাচুর্য্যের লোভে, মিথ্যে গল্পের ছায়ায় একজন নারী
নিজেকে আড়াল করে,  কলঙ্কিত সত্যে লজ্জা ঢেকে।

জীবনের ব্যবচ্ছেদ করে দেখি
ঝরে পড়ে অগনিত যন্ত্রণা ।
কিছুটা আলো, অনেকটা অবিশ্বাস
কবি ও কবিতার বুকে।
হয়তো কবিও হাহাকার করে রাত দুপুরে,
নিঃসঙ্গ নুপুরের  নিপুন সুরে।

“কখনো আর হেরে যাব না”
দৃঢ় প্রতিজ্ঞা করেও সে বারবার হেরে যায়।
হেরে যেতে বসে নির্মোহ নির্জন রাত্রি শেষে।
ভেঙ্গে পড়ে বারবার, নিরালায় নিরাকার।
জলছবি তার শুধুই আঁধার।

ব্যস্ত শহরের নিয়ন সন্ধ্যায়,
অলিগলি ফুটপাতে শুধু শুধু পথচলা
একা একা বলা কথাই বলা ,থেমে থেমে বারবার।
কিছুটা পাগল, কিছুটা আঁধার।

অবুঝ পৃথিবীর কাছে ক্ষমা ভিক্ষা করেও দেখি
দ্রোহ ও যুদ্ধের কাতরতা।
আজন্ম ক্ষুধার্ত শকুনের চোখে লালসার চিহ্ন।
পরিচিত পথে পরিচিত কেউ,
কাশ্মীরী স্বপ্নে বিশুদ্ধ ঢেউ।
অথচ অর্থ ও ললিতার পেছনে
ঝাঁক  ঝাঁক পাখির মিছিলে ,
বিগত সময়ের জাতীয় বিভ্রান্তি।

কিছুটা আলো, অনেকটা অবিশ্বাস
স্বপ্ন ও স্বপ্নহীনের চোখে ।
ধ্বংসের নগরে ইরাকী যন্ত্রণা
ইহুদী মন্ত্রে জেগে থাকা ফিলিস্তিনী অন্ধকার।
কিছুটা সত্য, অনেকটা পাপ
মন ও মানবতার বুকে।
ঠুকে মরে হাহাকার শোকে।
পাষাণ বুকে কান্নার রোলে অযাচিত মৃত্যু সুখ।

বছরের শেষ কবিতায়, তুমি ও তোমার স্বপ্ন চেখে ,
কিছুটা জ্যোৎস্না , অনেকটা অমাবস্যায় ,
নিয়তির গন্ধ মেখে ,
থেমেছি পথের শেষে।

অনাকাঙ্ক্ষার মাঝ রাতে
কিছুটা ঘৃণা, অনেকটা করুণায়
মুছে ফেলে রিক্ততা, বুনট স্বপ্ন আবার।
কিছুটা পাগল ,কিছুটা আঁধার।

মাইনুল ইসলাম আলিফ  কবি।

আরও পড়ুন