প্রাচীন ঐতিহ্য

 

স্থাপনাঃ লাহিড়ী টাওয়ার (মট)
স্থানঃ রাজশাহীর বাগমারার ঝিকরা( নামকান)
পরিদর্শনঃ 20/6/2019

লাহিড়ী বংশের ঐতিহ্য অতি পুরাতন। প্রায় সতেরো শতকের শেষের দিকে দূর্গা লাহিড়ী এ টাওয়ার স্থাপন করেন।
সাত শত ফিট উচু এ টাওয়ার এখনও প্রায় অক্ষত।
দূর্গা লাহিড়ী সাড়ে সাত শত একর সম্পদের মালিক ছিলেন। তেভাগা আন্দোলনের অন্যতম নেতা আর ক্ষুদে জমিদার ছিলেন দূর্গা লাহিড়ী।
অনেক কৃষকের আমানত রাখতেন তার কাছে।
নৌকায় করে দস্যু ডাকাত দল তিন বার আক্রমণ করেন তাকে। মূল্যবান অনেক সম্পদ মাটির নিচে পয়েন্ট করে লুকিয়ে রাখত এ জমিদার।
শেষ বারে সম্পদ আর জীবন কোনটাই রক্ষা পাইনি জমিদারের।
ডাকাত দলের দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে মারা যান দূর্গা লাহিড়ী আর দৃশ্যমান সম্পদ লুট করে নিয়ে যায় তারা।স্ত্রী ভানু মতির পেটে বাচ্চা ছিল তাই বাবার বাড়িতে প্রসাদ খেতে পশ্চিম বঙ্গের দিনাজপুরে গিয়েছিল।
ভানুমতির গর্ভে দূর্গা লাহিড়ীর সন্তান নানার বাড়িতে জন্ম লাভ করে, নাম তার কার্তিক লাহিড়ী।
জমিদারি ম্লান হতে থাকে কার্তিক লাহিড়ী সময় থেকে।স্থানীয় এলাকা বাসী জমি চাষ আর পুকুর খনন করতে গিয়ে প্রচুরপরিমাণ স্বর্ন পেলেও জমি ছাড়া সব কিছু থেকে বঞ্চিত হয় লাহিড়ী পরিবার।
কার্তিক লাহিড়ী ছেলে মিঠু আজও বগুড়ায় এক প্রাইভেট কোম্পানিতে চাকুরী করেন।
কিছু ওয়ারিশ জমি বিক্রয় করে ইন্ডিয়া স্থানান্তর হয়ে যায়।
এখন এখানে মাত্র দুই বিঘা সম্পত্তি লাহিড়ী পরিবারের।
তাদের বংশ আর সম্পদ লোপ পেলেও
আজও কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে সেই লাহিড়ী টাওয়ার বা লাহিড়ী মট।

 

আব্দুল মতিন- কবি সাহিত্যিক ও সহ সম্পাদক মহীয়সী।

আরও পড়ুন