অলৌকিক তুলির কাহিনী

মুজতাহিদ ফারুকী

আকাশে তাকালে নীল, অনেকেই দুঃখ মাপে নীলে
রূপালী জলের নদী মেলায় তুলনা চারু চোখের ঝিলিকে
ঘাস গুল্ম গাছেরা সবুজ, ফুলে ফলে আহা কী বাহার!
চোখ ভরা প্রশান্তির রুপচাঁদা উচ্ছ্বাসের নোনা জলে নাচে
শরতের কাশবন, পেঁজা মেঘ অবস্তুক পবিত্র শুভ্রতা
শান্তি শান্তি শুধু ঝিম ধরে থাকে হিম মানস সাগরে
বৈশ্বিক উষ্ণতা গিলে ফেলে এখনও অটুট কিছু মেরুর তুহিন
যেদিকে দু’চোখ যায়, মরে যাই, পুরাতন পৃথিবী রঙিন!

নানা রঙে চেখে দেখে মানুষ-জীবন, চিতচোর রঙের নখরা
ঋতুর ইজেলে আঁকা অলৌকিক তুলির কাহিনী হাতে বুনে,
জেনে রাখো, বাতাসেরও গায়ে আমি তরতাজা রঙ খুঁজে পাই,
কান পেতে শুনি নিচে গান গায় বারোয়ারী রঙের বিলাস
বাতাস ধারণ করে জাদুর প্রিজম, কলাবতী মনের রজন
হৃদয়ের রঙধনু প্রাণবান কোনও এক উষ্ণ তরুণীর।
মেতে থাকি নবজাতকের কাঁচা শরীরী ঘ্রাণের প্রিয় বর্ণ রসায়নে।
সে রঙের কেউ কোনও নাম রাখে নাই-

খড়্গের নিচে গলা, উর্দি ধরেছে চেপে কোকিলের টুটি
ফ্লয়েডের, সিনহার রক্তগোলাপ ছেনে হোলি খেলে রসিক শিকারী
বুকে ব’সে হিংস্র সীমার, তলোয়ারে সূক্ষ্ণ সোনা রোদের হুংকার
তবু আমি অকারণ ভীষণ সাহসে ঠোঁট টিপে হাসি
দুনিয়ার সব রঙ, রহস্যের চিটকোড চিনে ফেলা চোখ
শুষে নিলে সবটুকু মদির বর্ণালী,
দেখ নাকি রসময়, কী সুন্দর স্বপ্নমাখা সুনীল সে ঘুম!

কবিঃ সাহিত্যিক ও নয়া দিগন্তের মাসিক ম্যাগাজিন “অন্য এক দিগন্ত” এর সম্পাদক

আরও পড়ুন