নিঃসঙ্গ আবেদন

– হোসনে আরা মেঘনাঃ

ওগো বৃষ্টি !

তোমার সুরগাঁথা ছন্দময় রাতটি

শুধু আমাকেই দাও,

আমার কবিতার খাতা আর

নিত্য দিনের লিখনী সঙ্গী কলমকে —

আর কারেও নয়।

 

তোমার নীরবাচ্ছন্ন সুরে

বিমোহিত করেছো মোরে

রইবো সদা তব সুর মুর্চ্ছনায়।

বজ্রপাতেরে কভু দিওনা ঠাঁই

তুমি ঝড়কে করো দূরদূর ছাই,

যেন বন্ধ বাতায়ন একটু খুলে

হালকা হাওয়ায় তোমার প্রেম-স্নাত

শীতল পরশটুকু পাই।

যেন কাঁঠাল পাতায়, দূর্বার ডগায়,

তোমার থমক নাচন দেখে

রোমাঞ্চিত মনে তোমার সুর মেখে

শত হাজার বার নিজেরে রাঙাই।

 

হে ছন্দময়ী বৃষ্টি !

বারেক তোমার তাল মাতানো রাতটি

মোদের তিন প্রজন্মকে দিও

যেথা রইবো আমি, আম্মা আর আভা

আর কেউ নয়, কেউ নয়।

দেখবে ?  মন মজানো গল্প শোনাবো,

আনন্দ হাসিতে ভরিয়ে দেবো,

তোমায় করে দেবো আরও ছন্দময় !

 

বৃষ্টি, আরও একটি রাত দেবে ?

কবি নজরুলের সুরে কণ্ঠ ছেড়ে

গান গাহিবার তরে,

চক্ষুদয় বুজে আরাম বিছানাতে —-

“বর্ষণ মুখরিত সজল রাতে

হে প্রিয় তোমায় বলো কি দেবো হাতে?

 

বৃষ্টি! শুনতে পাচ্ছো কী

আমার এ নিঃসঙ্গ আবেদন ?

নাকি শুনছো কেবলই

দূর আকাশে মেঘের গর্জন ?

খুব কি বেশি চেয়ে ফেলেছি-

তিনটি রাত বৈতো নয়,

ইচ্ছে করলে দিতেই পারো

যদি সামান্য কৃপা হয় !

লেখকঃ কবি।

আরও পড়ুন