প্রাঞ্জল স্বপ্ন

 

থেমে যাওয়া পথের বাঁকে
এক বুক আশা কুর্তির পকেটে এঁটে
গোধূলীর ওপারে হারিয়ে যাওয়া বিকেলে
ঠাঁই দাঁড়িয়ে স্বপ্ন বিভোর মন ।

বট বৃক্ষের ডালে কিছু বুনোশকুন জটলায় মত্ত
স্বপ্নের কোমল মনে ঠোঁট চালিয়ে
রক্তাক্ত করা ক্ষতে
ভার্চুয়াল প্রলেপের পচন ধরায় ।

স্রোতোবহা নদীর বুকে গলিত লাশের গন্ধে
ভেসে আসে কিছু অশরিরীয় নাকে কান্নার আওয়াজ,
নদীর হারিয়ে যাওয়া দু’কুল আর আবারিত মাঠে
অনিশ্চিত আগামী হাত ছানি দেয়।

আবার কবে আঁধার ঘন ধরায়
ঘোমটা মোড়া জোসনার আঁচল থেকে বের হয়ে
কুমারী সকাল হাসবে, হাজার পাখি গাইবে।

হঠাৎ প্রলঙ্কারী ঝড়ে উল্টে যাওয়া পৃথিবীতে
ভেঙে যাওয়া বৃক্ষে আবারও নতুন করে ফলে ফুলে সুশোভিত হবে
সবুজ সারি সারি পাতার ঠোঁটে ভোরের শিশির মুক্ত ছড়াবে।

সূর্য্য স্নান করে বুক পকেটের
প্রাঞ্জল স্বপ্ন ভরা অঞ্জলি তুলে ধরা
প্রতিশ্রুতির হাত দুখানি, একগুচ্ছ
সদ্যস্নাত ভেজা কদম
অথবা শিশিরে ধোয়া শুভ্র নিশিগন্ধা ছুঁয়ে দিবে।

 

মঞ্জিলা শরীফ – কবি, এডমিন মহীয়সী প্যানেল 

আরও পড়ুন