রক্ত স্নান

মনি জামান
————
সেই কবে আমার ইচ্ছে গুলোর মৃত্যু হলো,এ মাটি আমার প্রাণ শক্তি ছিলো।
রক্তের নদী দুই ধারে অসংখ্য মৃত লাশ,আমার ইচ্ছে গুলোর অকাল মুত্যু হলো।
মায়ের মুখ খানি পাণ্ডুর রক্ত শূন্য টলমলে কফোঁটা অশ্রু, পদ্মা যমুনার খোরস্রোতার চুইয়ে পড়া যেন জল।
ঈশ্বর আমার আর্তনাদ শুনেনি সেদিন,সময়ের অমোঘ নিয়ম নিষ্পাপ কবি আত্মার মৃত্যু হলো।
খঞ্জর হাতে মহাকাল কফিনে
মোড়া,নিষ্ঠুরতা চারিদিক অহরহ বৃক্ষ ছেদন,নির্মল বাতাসের হাহাকার।
নদীর গহ্বরে বিলিন আমার শেকড়,মৃত্তিকার পৃষ্ঠদেশ ক্ষত বিক্ষত উদ্ভিদের সব মড়োক।
জঙ্গীর শানিত ছুরির ফলা রক্তে লাল,মায়ের হাতের কঙ্কন ভেঙ্গে সব চুড়মার,লাল টকটকে কপালের টিপ সব উধাও।
সাদা শাড়ী চোখে নেই কাজল সমুদ্রের ঢেউয়ে কষ্ট গুলো দিব্য ভাসে,নির্বাক দৃষ্টি স্বামী আসবে ফিরে অপেক্ষার এ তৃষিত দৃষ্টি পথের বাঁকে।
কথা ছিলো মহাকালের কাব্য
লিখবে কবি,শক্ত হাতে ধরা কলম ঝোলার বুক পকেটে রাখা ফুল গুলো সব আজ মৃত।
কলমের কালি রক্তে লাল,চঞ্চল কিশোরী মেয়ে অবাধ স্বাধীনতায় ধর্ষক আসে চুপি চুপি,ক্ষুধার্থ বাঘ খুবলে খায় মাংস আমার রক্তাক্ত ছিন্ন ভিন্ন স্বাধীন মানচিত্র থেকে,ভয়ে চিৎকার দেই শাণিত বিবেক থমকে দাঁড়ায়।
রক্তের ঘামে ভেজে এ মাটি,রক্ত স্নান হয় প্রতিদিন আমার স্বজাতির শরীর।

মনি জামান – কবি।

আরও পড়ুন