শ্রান্ত বিধস্ত আমি

-হোসনে আরা মেঘনা

আমি ক্লান্ত, আমি জরাজীর্ণ,
প্রতি পদে পদে যেন আমি পরিশ্রান্ত,
কৈশর, যৌবনে কিংবা প্রৌঢ়ে
প্রতিটি স্তরেই আমি যেন বিভ্রান্ত।

আমার চলা, আমার বলা,
সকল কর্মে শুধু যেন ভুল
দিক-বিদিক হতে নেই এক চুল।
মন মোর নীরব-নিথর-বিধস্ত,
নিস্তব্ধ যেন মোর দেহ-পদ-হস্ত।

সন্ধ্যে বেলালায় নির্জন ছাদে বসে
ঘাস ফড়িং আর পাখির উড়া দেখতে
আর উৎসাহ জাগেনা।
কার্তিকের ভোরে দূর্বার শিশির বিন্দু মাড়িয়ে
পথ চলা আর ভাল লাগেনা।
ভোরের সেই হিমেল হাওয়া
আগের মতন আর মন ছুঁয়ে যায়না।
খোলা ছাদে একাকী চিৎ হয়ে শুয়ে
শরতের মেঘমুক্ত আকাশে চেয়ে—-
ইচ্ছে করেনা আর সপ্তর্ষিমন্ডলের
পরিকল্পনার ছবি আঁকতে।

পূর্বের সেই উচ্ছলতা ও ব্যকুলতায়
ছুটে যাইনা আর বেলকোণীতে।
পথিকের গাড়ির হর্ণ সারা যোগায়না
হৃদয়ের একূল-ওকূল ছাপিয়ে।
বড়দের দৃষ্টি লুকিয়ে লুকিয়ে
বন্ধুদের আড্ডায় আর ভীড় জমাইনা।

আজ আমি অবসাদগ্রস্ত।
পূর্বের সেই চঞ্চলতা আর
হৃদয় মন করেনা আচ্ছাদিত,
নিজেও জানিনা, আমি কেমন আছি !
আহলাদিত, আনন্দিত, নন্দিত,
নাকি বিষাদের বিষাক্রান্তে মন ভারাক্রান্ত !

লেখক: কবি ও সহ-সম্পাদক, মহীয়সী।

আরও পড়ুন