বাবুই পাখি

মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম

বাবুই পাখি তিলে তিলে
বুনে তার বাসা!
ঘরটি নয় তার শক্ত ভিতের
স্রেফ বায়ুমণ্ডলে ভাসা।

বাবুই পাখি নিপুণ ঠোঁটে
গড়ে তার বাসা!
ঘরটি নয় তার ইট-কংক্রিটের
স্রেফ খড়কুটোতে ঠাসা।

তীক্ষ্ণ ঠোঁটের যাদুর ছোঁয়ায়
নিখুঁত তার কারুকার্য,
ধৈর্য তাহার প্রধান হাতিয়ার
একমাত্র তার ঐশ্বর্য!

যদিও ঘরটি তার অতি সাধারণ
মৃদু হাওয়ায় হেলেদুলে,
তবুও মনে তাহার ভীষণ রকম
খুশির জোয়ার খেলে।

যদি ধেয়ে আসে কালবৈশাখী
নামে যমুনার ঢল,
মনটি তাহার শক্ত অতি
থাকে সদা অবিচল!

বাবুই পাখির নিজের গড়া
খড়কুটোর ঘর,
মনে তাহার সাহস অতি
নেই করোনার ডর!

যদি ঘরটি তাহার উপড়ে ফেলে
আম্পানের ঝড়,
তবে নতুন আশায় বুক বাঁধে সে
আবার গড়ে ঘর।

তারাই খুশি তারই সুখী
যারা অল্পতেই তুষ্ট,
ভালোলাগা তাদের খোঁজে
যারা কাজেকর্মে একনিষ্ঠ।

তারাই মরে দুঃসময়ে
যারা ছেড়ে দেয় হাল!
তারাই বাঁচে দুঃসময়ে
যারা আঁকড়ে ধরে হাল!

ডরেনা পাখি কালবৈশাখে
যদি ভাঙ্গে গাছের ডাল!
ডরেনা মাঝি ঝড়ো হাওয়ায়
যদি ছিঁড়ে নৌকার পাল!

কবিঃ কবি, সাহিত্যিক ও অংকনশিল্পী

 

আরও পড়ুন