ময়নামতির চর

 

ময়নামতি চরের কবি আমার প্রাণের বন্দে আলী
দেখে যাও, ময়নামতির ধূধূ মাঠ পড়ে আছে খালি
সেই কবে থেমে গেছে পদ্মার উন্মাতাল ধারা
এ দেশের সব নদী মৃতপ্রায়, চলে না গুদারা।

রোদ পোহানো কুমীরেরা কোন্ অজানায়
চলে গেছে কবে সুদূরের কোনো মোহনায়
তারা এখন শুধুই ইতিহাস।

খরসুলা ডানকুনি মাছরাঙা বালিহাঁস
ইতিহাসের রেশ ধরে আজও তারা আছে কিছুকিছু
বাকি সব হেঁটে চলে গেছে অতীত সময়ের পিছুপিছু।

বাঘ নাই তাই ফেউ নাই; নাই পিলে চমকানো হাঁক
টোঙে বসে আর দেয় না পাহারা ওপাড়ার ইসহাক
পদ্মা সাঁতারি এপারে আসে না বন্য বরাহপাল
মানুষের স্বপ্নফসল মানুষেই করে পয়মাল।
মানুষ নিয়েছে বরাহ শার্দূল ফেরু হায়েনার থান
লোকালয় যেনো শাপদশঙ্কুল অরণ্যস্থান।

চৈত্রসংক্রান্তির মেলা বসে না বাজে না পাতার বাঁশি
খাজা-বাতাসার ঠোঙা হাতে নাই বুড়োদের কাশাকাশি,
কৃষকের ঘরে কলের লাঙল, হাতে কথাবলা কল
হালটের পথে হাঁটে না কেউ আর চড়ে বাইসিকল।

সুদূরের স্বপ্নে ময়নামতির চর আজও জেগে আছে
জেগে আছো তুমি বন্দে আলী হৃদয়ের খুব কাছে।

আবু সাইফা – কবিও গবেষক। 

আরও পড়ুন