আজব স্বপ্ন

আব্দুল মতিন

হেনার সাথে ৬ বছর পড়াশোনা করেছি, অথচ তার মনের কথা জানতে পারিনি। খুব হিংসা করতোও অনার্সে ফাস্ট ক্লাস পাইনি বলে তবে বেশি নম্বর কম ছিলনা মাত্র ১১ মার্কস।অসাধারণ মায়া জেগেছিল তার প্রতি।মাস্টার্স শেষ বর্ষ একদিন বললাম হেনা আই মিস ইউ।তার বড় বড় চোখের আড়ালে খুব ভাল লাগা লুকিয়ে থাকত।হেনা কিন্তু কিছুতেই পাত্তা দিতনা আমাকে।তবুও মনের অজান্তেই তার পিছনে লেগে থাকতাম।হেনার কথা কি আর বলব, ভারি সাদামাটা, চৌকস, মেধাসম্পূর্না,কথা,উপস্থাপনা,সৌজন্যতা সব মিলে অপূর্ব সুন্দরী এক মেয়ে।সত্যি মুগ্ধ করত আমাকে। কখনো কখনো বলত- আর ডি তে কাজ আছে যাবে? নিউমার্কেটে একটি বই কভার করতে দেয়া আছে একটু এনে দেবে? সি এন বি তে একটু চল না! আমার কিছুটা সমস্যা হলেও কখনো না করেছি মনে পড়ে না।একদিন আমাকে পদ্মা পার্কে বাদাম খেতে খেতে বলল, আমাকে ভুল বুঝবেনা আমি তোমার বন্ধু রূপেই থাকতে চাই! এর বেশি কল্পনাও করবে না।কখনো কখনো তার উপদেশ মূলক আচরন আমার হৃদয়ে বিষাদের ঘনঘনায় ভরে যেত। তবুও পবিত্র মন থেকে তাকেই চাইতাম। আবার ভাবনায় জড়িয়ে যেত বন্ধুত্বের মানে! সিদ্ধান্তহীনতা আমাকে কিংকর্তব্যবিমূঢ় বিমুখ করে তুলেছিল। এভাবেই চলছিল আমাদের জীবন, বন্ধুত্বের চাদরে জড়িয়ে ফেললাম নিজেকে। আস্তে আস্তে ফাইনাল পরীক্ষা ঘনিয়ে এলো। হেনার দৃষ্টি, চাওয়া, ডাকার মাঝে অদ্ভুত কি যেন লুকিয়ে থাকত। বাবা রেল অফিসার হেনা ভাল ক্যারিয়ার গড়বে এটাই স্বপ্ন ছিল তার। এবার মাঝে মাঝে লক্ষ্য করছি ওর জন্মদিনে বা বিশেষ দিনে আমার নামে গিফট নিয়ে আসত! এটি আজ আমার পক্ষ থেকে তোমার জন্যে। অবাক হতাম তার আকর্ষনীয় উপহার দেখে। শেষ পরীক্ষার পর সে কফি খেতে খেতে বলল, আই মিস ইউ। তখনও বুঝতে পারিনি সে আমাকে ভালবেসে ফেলেছে। এবার বাবা- মার ইচ্ছেতে দেখা শুনার মধ্য দিয়ে আমি বৈবাহিক জীবনে পদার্পন করলাম।কেটে গেল তিন- চার বছর। বিশেষ কাজে পার্বতীপুর যেতে মনস্থির করলাম, তিতুমীর এক্সপ্রেস রাজশাহী থেকে যাত্রা শুরু হলো,সান্তাহার স্টেশনে তখন সকাল ৯ঃ৪৫ মি.
কাল বোরখা আর গোলাপী স্কার্ফ পড়া হেনা! অবাক হলাম! ১০ মি এ বিরতির মধ্যে এক মিনিটে ছুটে গেলাম তার কাছে। আরে হেনা! কেমন আছ? কি করছ? কোন উত্তর পেলাম না।তার বড় ভাই বলল, হেনাকে চেনেন আপনি? আমি হা, ওর আমার বেস্ট ফ্রেন্ড…..! উনি জানালেন, হেনা চার বছর থেকে বাক প্রতিবন্ধি। মনের অজান্তেই নয়ন বারি ঝরে পড়ল। হেনা শুধু অপলক দৃষ্টিতে আমার দিকে চেয়ে রইল।

আরও পড়ুন

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.