বিয়ে ও একটি প্রাসঙ্গিক আলোচনা

শরীফ হোসেন

এমন বিষয় নিয়ে লিখতে আগ্রহ বোধ করি না। সাম্প্রতিক সময়ে প্রগতিবাদী (বিচ্ছিন্নতাবাদী) এবং ইসলামপন্থী দাবিদার (শব্দটা ব্যখ্যা করার অবকাশ রেখে দিলাম) লোকজন বিয়ে, বহুবিয়ে নিয়ে যা লিখছে তাতে না লিখে পারলাম না।
ইসলাম বিয়ের বয়স নির্ধারণ করে দেয়নি। তার মানে এটা সমাজ তার প্রয়োজন অনুসারেই নির্ধারণ করবে। রাজনীতির ব্যাপারে খিলাফত শব্দ ব্যবহার করলেও এর স্টাকাচারাল রুপ ইসলাম বলেনি মানে এটা সমাজ/জনগন নির্ধারণ করবে।
কেন এমন? শীতপ্রধান দেশে শরীরে যৌনতার প্রকাশ হয় দেরীতে আর গ্রীষ্মপ্রধান দেশে দ্রুত। আবার রাজনীতিতে দেখুন না আফগানিস্তানে পশতুন ছাড়া প্রেসিডেন্ট আপনি কোন তন্ত্র দিয়ে আনবেন আনেন কেউ মানবে না। এজন্যই এসব বিষয়ে ইসলাম কল্যাণ কামনার পথ অনুসরণ এবং নির্দিষ্ট না করার সূত্র অবলম্বন করেছে।
আমাদের দেশে ইসলামী একটি গ্রুপের দাবী সরকার বিয়ের বয়স নির্দিষ্ট করে দিয়ে ইসলামের উপর নিজ মতবাদ চাপিয়েছে। তারা জালেম, ফাসেক, জাহান্নামী। এ নিয়ে আলোচনা প্রথমেই বলে রাখি আমার বক্তব্যের সাথে আপনার ১০০ ভাগ দ্বিমত আছে কিন্তু পুরোটা পড়ুন তার পর মন্তব্য করুন।
ইসলামে রাষ্ট্র একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। রাষ্ট্রের কিছু দায়-দায়িত্ব আছে। সুস্পষ্ট কারণ ছাড়া রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করা যায় না। এই দায়িত্ব ও নীতি প্রবর্তন একটি রাষ্ট্রের মূল কাজ। আমাদের দেশে ১৮ আগে মেয়ে আর ২০ এর আগে ছেলে বিয়ে দেওয়া যাবে না। আচ্ছা বলুনতো এটা কি খুব বেশি বয়স। আপনার মেয়ে বা বোনকে নিশ্চয় এর আগে দেননি, দিবেনও না।
এর পর আপনি যা বলবেন তা আমি জানি। মিয়া সমাজ চেন, ছেলে মেয়েরা কত আকাম করে, সবার এখন অল্প বয়সে যৌনতার ধারণা এসে যায়। বলুনতো সেক্স ক্রাইমের বয়স ভিত্তিক বিবেচনায় আপনার কাছে কোন ডাটা আছে? বড়রা কিন্ত ছোটদের চাইতে এ ক্ষেত্রে অগ্রগামী।
মজার ব্যাপার আমাদের সমাজে ইসলামী একটি গ্রুপ দাবী করছে শরীরে যৌনতা আসলেই বিয়ে দিতে হবে। দেখুন একটা মেয়ে শুধু সেক্স এর জন্য বিয়ে করে না, এ থেকে তৈরী হয় পরিবার, সমাজ। একটি মেয়ে এখন চতুর্থ বা পঞ্চম শ্রেনিতে তখন তার মিনস এবং শরীরে সেক্স এর আগমন হয় তাহলে কি তখনি বিয়ে দিতে হবে? চিন্তা করুন তো! আমার স্ত্রীর স্কুলের ক্লাস থ্রির এর মেয়ে প্রেমপত্র লেখে বসে আছে তাহলে তখনইকি তাকে বিয়ে দিতে হবে?
একটা মেয়ের বিয়ের জন্য শরীরে যৌনতার উপলব্দিটাই যথেষ্ট নয়। এই যৌনতাকে পরিপূর্ন হতে সময় লাগে বা কিছু সময় দিতে হয়। এর পর তাকে সংসার নামক বস্তু বুঝতে হয় তার পর বিয়ে করতে হয়। আপনি কি ১৯৮৫ পর্যন্ত চাইল্ড মর্টালিটি ও ম্যটারনাল মর্টালিটি দেখেছেন? এখন সে হার একেবারে কম। কারণ এই বাল্য বিয়ে প্রতিরোধ। আপনি আমার দিকে থাপ্পড়ের জন্য প্রস্তত হচ্ছেন কিন্ত জানেন কি ১৮-২২ মেয়েদের বায়োলজিক্যাল পরিপূর্নতা আসে। মেডিক্যাল সায়েন্স বলে ২২-২৫ এর মধ্যে বাচ্চা নেওয়ার প্রকৃষ্ট সময়।
এবার বলি সামাজিক আচার, বাল্য বিয়ের দুঃসহতা দেখেছেন কি? এদেশে বস্তি আর প্রত্যন্ত গ্রামে এসব নিয়ে রয়েছে দুঃসহ অভিজ্ঞতা।
তাহলে বাচ্চারা আকাম করে এর প্রতিকার কি? রাষ্ট্রের দায়িত্ব এখানেই। আপনার মিডিয়া এসব নিয়ে বিভিন্ন প্রোগ্রাম করবে, যৌনতা সামগ্রী মানে সুড়সুড়ি সিনেমা আর নাটক বন্ধ করুন, ইন্টারনেট নিয়ন্ত্রন করুন, স্কুলে নারী পুরুষের সম্মানবোধের উপর পাঠ্যসূচী নির্ধারণ করুন। এর পর সামাজিক নেতারা সমাজের পরিবেশ উন্নত করুন।
আচ্ছা আপনরা যারা সুন্নাহ নিয়ে সারাদিন মারামারি করেন ক্ষেত্রমতে ফরজের উপরে স্থান দিয়ে হাদীস অনুসারী দাবি করেন তারা কি জানেন নবী (সাঃ) এর বিয়ের বয়স কত ছিল? উনার বিয়ের বয়স ছিল ২৫। আয়িশা (রাঃ) বিয়ের বয়স নিয়ে যারা উচ্ছসিত তারা আরো পড়ুন উনার বয়স ছিল ১৫ এবং বর্তমানে তা সুস্পষ্ট করে প্রমান করেছে।
রাষ্ট্রকে অসহায় করবেন না। প্রসঙ্গক্রমে বলি, সাম্প্রতিক হিন্দুদের সম্পত্তিতে উত্তরাধিকার নিয়ে বে-সরকারী উদ্যেগে কথা হচ্ছে। কি ভয়াবহ চিন্তা করুন হিন্দু ধর্মে নারীরা সম্পদের অধিকার লাভ করে না। কিন্ত হিন্দু মহাজোট বলছে এটা তাদের ধর্মের ব্যাপার এ ব্যাপারে বলা যাবে না। কেন বলা যাবে না???!!!
এমন বিষয়সমূহ কিংবা বিয়ের বয়স সবটাই কল্যাণ রাষ্ট্র নির্ধারন করবে বা রাষ্ট্র হিসেবে কিছু কল্যাণ কর্ম করবে। এটা ধর্মের সাথে সাংঘর্ষিক নয়। বিয়ে একটি পবিত্র জীবনব্যাপী চুক্তি। সেই চুক্তি বোঝার মত ক্ষমতাও একজন মেয়ে বা ছেলের জানার দরকার আছে।
বিয়ে একটি প্রাসঙ্গিক আলোচনা- বিয়ে একটি প্রাসঙ্গিক আলোচনা- বিয়ে একটি প্রাসঙ্গিক আলোচনা
লেখকের প্রকাশিত লেখা বহু বিবাহ
শরীফ
১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
পশ্চিম ধানমন্ডি
আরও পড়ুন