Ads

স্বামী-স্ত্রী তালাকের পরও ভালো বন্ধু হতে পারে কি?।। ষষ্ঠ পর্ব

।। জামান শামস ।।

বিয়ে বিয়ে খেলা-এই গড়ে তো এই ভাঙ্গে

হায় হায় ডিভোর্স হয়ে গেল! এই না সেদিন বিয়ে হলো? প্রেম বিয়ে যেন বাচ্চাদের পুতুল খেলা। মনে হলো তাই বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক নিয়ে বেশ কয়েক বছর কাটানোর পর বিয়ের কথা স্মরণ হলো। আসতাগফিরুল্লাহ। এমন ঘটনা এখন বিস্তর, উদ্দাম ও অশ্লীল সংস্কৃতির নায়ক নায়িকারা মূখ্য হলেও এটি এখন বহু পরিবারেই। বিবাহ যে একটি পবিত্র ইবাদত ও হালাল সম্পর্ক যে একটি পরিবারের বুনিয়াদ তা যেন এদের কাছে তুচ্ছ ও নাটক সিনেমার মতোই। তথাকথিত এসব অসভ্য তারকাদের ডিভোর্সের পরে দু-চারটা মন্তব্য আপনি আমি সবাই করে থাকি। আর সে সময় সবার যে একটা কমন জিজ্ঞাসা থাকে, সেটা হলো ঠিক কতদিন তার সংসার টিকেছিল? নাম উল্লেখ না করে (ছদ্মনাম ব্যবহার করে) এখানে এমন কয়েকটি বাস্তব উদাহরণ তুলে ধরছি-

১. ২০১৭ সালের ১২ মে সানজাকে বিয়ে করেছিলেন পামিলা। বিয়ের প্রায় ১০ বছর আগে থেকেই তাঁদের পরিচয় ও প্রেম। কিন্তু বিয়ের পাঁচ মাসের মাথায় মারধর ও যৌতুকের অভিযোগে পামিলা মামলা করেন সানজার বিরুদ্ধে। কারণ হিসেবে বলেন, ১০ বছর সম্পর্কের পর আমরা বিয়ে করেছিলাম। কিন্তু বিয়ের মাত্র ১৩ দিনের মাথায় জানতে পারি, একাধিক নারীর সঙ্গে তার সম্পর্ক। প্রেমের সময় থেকেই সে আমার সঙ্গে প্রতারণা করে এসেছে। বিয়ের পরও একাধিক নারীর সঙ্গে সম্পর্ক রেখে আমাকে প্রতারিত করেছে। এত বছরের সম্পর্কের পরও যে মানুষ এমন করতে পারে, তার সঙ্গে এক ছাদের নিচে থাকা যায় না। কোনও নববধূই এমন বর প্রত্যাশা করে না। ১৩ দিনের মাথায় তিনি তাকে ডিভোর্স দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

আরও পড়ুন-

স্বামী-স্ত্রী তালাকের পরও ভালো বন্ধু হতে পারে কি?।। ৫ম পর্ব

২.বিয়ের পর মাত্র ২ মাস ১০ দিন অথর্ব-সুপ্রভা একসঙ্গে ছিলেন। তারপর দাম্পত্য কলহের কারণে প্রায় ৫ মাস তারা আলাদা থেকেছেন। গাজীপুরের পুবাইলে চয়নিকার ‘পালিয়ে বিয়ে’ নাটকের শুটিং শেষে মায়ের সঙ্গে বাসায় যান। গভীর রাতে বাসা থেকে অভিনেতা অথর্বের হাত ধরে সুপ্রভা শুটিং স্পট থেকে বেরিয়ে পড়েন। পরদিন ভোরে ময়মনসিংহে গিয়ে তারা বিয়ে করেন। সেই সম্পর্ক নানা অনাকাঙ্খিত ঘটনায় পনেরো দিন পরে কাঁচের গ্লাসের মতোই ভেঙ্গে যায়।

৩.ইলিয়াস ও অদিতির বিয়ে টিকেছিল ছয় মাসের মতো। অথচ দুজনার জুটি ছিল অসম্ভব জনপ্রিয়। একসঙ্গে প্রায় ৩০ টির মতো সিনেমা করেছেন। দুজনারই এটি দ্বিতীয় বিয়ে ছিল। চৌধুরীকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন অদিতি। তাঁদের সংসারে লামি ও দীপ্ত নামের দুই সন্তান রয়েছে। চৌধুরীর মৃত্যুর পর ইলিয়াসকে বিয়ে করে সংসার শুরু করেন অদিতি, কিন্তু তাঁদের সে বিয়ে টেকেনি। কয়েক মাস পরই তারা বিচ্ছিন্ন হোন।

৪.শিরিন ও সোহেলের বিয়ে টিকেছিল সাত মাস। অনেকে তার চেয়েও কম সময় বলে দাবি করেন। এই একমাসের মধ্যে তারা পরিবারের অমতে পালিয়ে যায়। এর মধ্যে বিয়ে কর্ম সারে। বছর না পেরুতেই তাদের সংসারও যায় ভেঙ্গে। কারণ হিসেবে শিরিন জানিয়েছিলেন অ্যাডজাস্টমেন্ট না হওয়ার বিষয়টি।

৫.রেশমী ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন ভিনদেশি নির্মাতা হিংগোকে। দেশের অনেক সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বের বারণ সত্বেও হিংগোকে নিজের করে নিয়েছিলেন রেশমী। বিয়ের সময়ই অনেকে বলেছিলেন এই বিয়ে বেশি দিন টিকবে না। অনেকের সেই অনুমানকে সত্যে পরিণত করতে বেশি দিন সময় নেননি তাঁরা। এক দুর্ঘটনায় হিংগো আহত হলে চিকিৎসার জন্য দিল্লীতে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। সেখানেই রেশমী জানতে পারেন মিথ্যা বলে বিয়ে করেছিলেন হিংগো। আগের স্ত্রীকে তালাক দেননি। রেশমী এবার পরিবারের কথাই শুনলেন। তালাক দিলেন হিংগোকে।

৬.পপি প্রথমে আশিককে বিয়ে করেন। কিন্তু বছর না যেতেই ডিভোর্সের খবর রটে। পরবর্তীতে মাসুদকে বিয়ে করেন। সেই সংসারও টেকে না একবছর। এরপর নির্ঝরকে বিয়ে করেন। বছর না ঘুরতেই ডিভোর্সের খবর শোনা যায়। সর্বসাকুল্যে পপি এক বছেরে ফাড়া যেন কাটে না। ঈদের দিন বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা হয় খুব গোপনে। যেখানে উপস্থিত ছিলেন নির্ঝরের বোন-দুলাভাইসহ কাছের আরও দুই-একজন। নির্ঝর-পপির সম্পর্ক গড়ে ওঠে স্থাপত্য শিল্পকে কেন্দ্র করে। গত সাত মাসে সেই সম্পর্ক পরিণয়ে গড়ায়। বিয়ের পর পরই পপি স্বামী নির্ঝরের বাসায় সংসার গুছিয়েছেন।জানা যায়,নির্ঝরের এটা তৃতীয় বিয়ে।

আরও পড়ুন-

ইসলাম বিরোধী মেডিয়া যাদের মুসলিম বানালো !

৭.২০১৬ সালের শুরুর দিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয় মনির সঙ্গে দুজনের বিয়ের খবর। এমনকি বিয়ের ছবি, কাবিননামা ও তালাকনামার ছবিও প্রকাশ পায় ফেসবুকে। প্রথমে মনি ছিলেন ইসমাইল নামের একজনের স্ত্রী। কিছুদিন পরেই জানা যায় সৌরভ নামের আরও একজনের সঙ্গে তার বিয়ের কাবিননামা এবং কিছু ঘনিষ্ঠ ছবি। এর দুই বছর আগে সেতু নামের একজনের সঙ্গে তার বিয়ে হয়েছিল। তারা দুই বছর সংসারও করেছিলেন। ২০১৭ সালে হাসান নামের এক সাংবাদিকের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্কের কথা জানা যায়। বাগদানও হয়েছিল। তামিমকে নিয়ে প্রকাশ্যে বিভিন্ন দেশে ঘুরতেও গিয়েছেন মনি। দুই বছর প্রেমের পর ২০১৯ সালে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়।এরপর ২০২০ সালের ৯ মার্চ রাতে রনিকে মাত্র তিন টাকা দেনমোহরে বিয়ে করেন মনি। কিন্তু সে বিয়েও ৫ মাসের মাথায় ভেঙে যায়। এরপর আরো এক মহারাজা তার জীবনসঙ্গী হোন। তিনিও সাবানের বুদবুদের মতো আকাশে মিলান। এখন তিনি অন্য কারো অপেক্ষায়।

বিশ্বাস করুন,খবিশদের কাহিনী বলা আমার উদ্দেশ্য নয়। আমি কেবল আমার লেখা শিরোনামের একটা যুৎসই উপসংহারে পৌছতে চেয়েছি মাত্র। লেখাটি চলমান সময়ে আমার পাঠকগণের কেউ “স্বামী-স্ত্রী তে তালাক হবার পরও বন্ধুত্ব চলতে পারে” মর্মে এই যুক্তি দেখিয়েছেন যে সন্তানদের স্বার্থেই তালাক হয়ে যাওয়া মা-বাবা প্রকৃত মা-বাবার অভিনয় করবেন যতদিন না তারা বড় হয় এবং বুঝতে শিখে। একথার মধ্যে কোন দোষ নেই,নির্ভেজাল সত্য কথাই বটে। তবে একটা কিন্তু আছে। আপনার যুক্তি বড় অদ্ভুতই।কেননা এ যেন “মায়ের চেয়ে মাসীর দরদ বেশী” প্রবাদতুল্য। সন্তানের জন্মদাতা ও গর্ভধারিনী তারা এই সন্তান লাভের আকাঙ্ক্ষায় তো তারা দু’জনে পরষ্পরের সন্নিকট হয়েছিলেন,কষ্টের পর কষ্ট সহ্য করেছিলেন।সন্তানের প্রতি তাদের ভালোবাসা থাকলে তো তারা নিজেরাই বিচ্ছিন্নতার পথ পরিহার করতে পারতেন। পরষ্পরের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান বাড়াতে পারতেন।একজন অন্য জনের ভরসা ও আশ্রয়ের জায়গা হতে পারতেন। নিজেরা বিবাহের নামে আনন্দ ফুর্তি করে বাচ্চাগুলোকে ইয়াতিমের মত সহায়হীন করে আবার বিবাহ বহির্ভূত আনন্দের পার্টনার খুঁজলেন, যিনি চূড়ান্ত অপ্রিয় হয়ে বিচ্ছিন্ন হলেন তাকেই আবার বলছেন,”অকৃপন বন্ধু হে !” এ কেমন বন্ধু তুমি এতো বিশ্বস্ত ?

ষষ্ঠ ও শেষ পর্ব

 

লেখকঃ কলাম লেখক এবং সাবেক এডিশনাল ম্যানেজিং ডিরেক্টর, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ পিএলসি

…………………………………………………………………………………………………………………………

মহীয়সীর প্রিয় পাঠক ! সামাজিক পারিবারিক নানা বিষয়ে  লেখা আর্টিকেল ,আত্মউন্নয়নমূলক অসাধারণ  লেখা, গল্প  ও কবিতা  পড়তে মহীয়সীর ফেসবুক পেজ মহীয়সী / Mohioshi  তে লাইক দিয়ে মহীয়সীর সাথে সংযুক্ত থাকুন। আর হা মহীয়সীর সম্মানিত প্রিয় লেখক! আপনি আপনার পছন্দের লেখা পাঠাতে পারেন আমাদের ই-মেইলে-  [email protected]  ও  [email protected] ; মনে রাখবেন,”জ্ঞানীর কলমের কালি শহীদের রক্তের চেয়েও উত্তম ।” মহীয়সীর লেখক ও পাঠকদের মেলবন্ধনের জন্য রয়েছে  আমাদের ফেসবুক গ্রুপ মহীয়সী লেখক ও পাঠক ফোরাম ; আজই আপনিও যুক্ত হয়ে যান এই গ্রুপে ।  আসুন  ইসলামী মূূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রজন্ম গঠনের মাধ্যমে সুস্থ,সুন্দর পরিবার ও সমাজ গঠনে ভূমিকা রাখি । আল্লাহ বলেছেন, “তোমরা সৎ কাজে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে এগিয়ে চলো ।” (সূরা বাকারা-১৪৮) । আসুন আমরা বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চার মাধ্যমে সমাজে অবদান রাখতে সচেষ্ট হই । আল্লাহ আমাদের সমস্ত নেক আমল কবুল করুন, আমিন ।

ফেসবুকে লেখক জামান শামস

আরও পড়ুন