‘মে’ প্রাসঙ্গিক কিছু  কথা                        

মু. নিজাম উদ্দিনঃ                                                  মে আসে মে যায়। ঐতিহাসিক এ মাস তথা ১লা মে নানা আয়োজনে পালিত হয় শহরে নগরে বন্দরে।এ বর্ণিল উৎসব অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে যুগ যুগ ধরে।কিন্তু কিসের নিমিত্তে এ আয়োজন তার ক্যালকুলেশন ক্যালকুলেট কতটুকু হয় তা চোখওয়ালা ঢের বোঝেন তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।এ মাস শ্রমিকদের অধিকার আদায়ে রাজপথে রক্ত ঝরানোর যে ঐতিহাসিক পটভূমি তা সর্বস্তরের মানুষের জানা বুঝা অধোরাই থেকে যায়। যে দিনটি শ্রমিকদের অধিকার পূরণের জোর দাবি রাখে ঠিক সেই দিনটাতেও শ্রমিকদের ঘাম ঝরে বকেয়া বেতন ভাতার জন্য রাজপথে ব্যর্থ আন্দোলন আর সংগ্রামে। শুধু তাই নয় নিজেদের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে নেমে অনেকে রাজপথে লাশ হয়ে ফিরে । একটা জাতির জন্য এটা কতটা লজ্জাস্কর তা বলার অপেক্ষা রাখে না। ধনিক শ্রেণীর শোষণের যাঁতাকলে পিষ্ট খেটে খাওয়া মানুষের অধিকার।এক শ্রেণীর ধান্দাবাজ বুদ্ধিজীবী মহলের ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে শোক প্রকাশ আর কথার ফুলঝুরি দিয়ে টু পাইস এটাই স্বাভাবিক রীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা যখন শ্রমিকদের অধিকার নিয়ে বক্তব্য দিয়ে মুখে ফেনা তুলে ফেলি ঠিক তখনই সহস্র শিশু ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করছে দুমুঠো ভাতের জন্য।এ যেন এক অসম যুদ্ধ।যে যুদ্ধে পরাজিত গোটা জাতি, গোটা মানবতা।এ ব্যার্থতার শৃঙ্খলা থেকে বেরিয়ে আসুক দেশ, জাতি তথা সমগ্র মানবতা। এই পণ হোক এবারের মে মাসে।

আরও পড়ুন