জীবনের হিসাবটা বড়ই জটিল!!!

মোসাঃ নাসরিন সুলতানা

একটি ছোট অজপারা গ্রামে সামান্য একজন কৃষক এর ঘরে জন্ম আমাদের পাচঁ বোন ও দুই ভাই এর! হে বাবা মা দিন রাত কষ্ট করেছে রৌদ্রে পুড়ে বৃষ্টিতে বিজে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে আমাদের পড়িয়েছেন দেশ সেরা বিশ্ববিদ্যালয়! বাবা মার পর যে আমাদের বাবা মা হয়ে উঠেছেন তিনি আমাদের মেজ বোন হাছানা বেগম! জীবন কি, জীবনের গুরুত্ব কি, জীবনে কি করা উচিৎ? সব শিক্ষা আমরা তার কাছে পেয়েছি! যে ছিল আমার জান তাকে ছাড়া আমি যে থাকতে পারব সেটা মানতেই লেগে গেছে বহু বছর! যে আপা বাথরুমে গেলে দরজায় দাড়িয়ে থাকতাম! কোথাও দাওয়াত খেতে যেত না যদি আমাকে নিতে না পারত! বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির পরও প্রতি মঙ্গলবার ঢাকায় চলে আসত আমার সাথে এক রাত থাকবে বলে! আজ আমার যেই বোনটি যুদ্ধ করছে ক্যান্সার এর মতো মরন ব্যাধির সাথে দিন দিন খারাপ হচ্ছে ওর কষ্ট কিছুতেই মানতে পারছিনা! কষ্ট হচ্ছে বিষণ প্রতি নিয়ত মনে হয় আল্লাহ কেন এমন অবিচার করছেন? ! আপার মতো ভাল মানুষ তো আমি দেখি নাই? নিজে পড়াশোনা করেছে নিজের বাড়ি থেকে বহু দূরে মামার বাড়িতে থেকে,, পড়াশোনা করিয়েছেন মামাতো ভাইবোনদের, HSC পাশ করে ফিরে এসেছিলেন নিজ গ্রামে এবং শিক্ষক হয়েছে গ্রামের স্কুলে যাতে তাকে দেখে সব মেয়েরা স্কুলে যায় কুড়াখাল গ্রামের অনেক মেয়ের প্রেরণা সে! এর পর তাকে দেখে পছন্দ করে একজন নিয়ে গেল রামচন্দ্রপুর কোন বিশেষ অভিজ্ঞতা ছাড়া মাত্র বি এ পাশ করেই হয়ে গেলেন আকাব্বরের নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক! একদিকে পড়াশোনা করেন অন্য দিকে স্কুলের MPO থেকে শুরু করে সকল কার্যক্রম নিজের হাতে করেন এবং চালু করেন ভোকেশনাল শাখা। গার্লস স্কুলে যাতে মেয়েরা কর্মসংস্থান এর সুযোগ পায়!

আপা তো সেই আপা যে সবার প্রিয় এটা শুধু আমি না আমার বাকি ছয় ভাই বোনকে প্রশ্ন করলেও একই উত্তর পাবেন! এটা শুধু আমরা ভাই বোন না যদি আমাদের চাচাতো ভাইবোন কে জিজ্ঞাসা করেন এরাও বলবে আপাই প্রিয়, যদি মামাতো ফুফাত ভাই বোনকে জিজ্ঞাসা করেন তারাও বলবে আপাই প্রিয়! আসলে আপা আমাদের এমন কেউ নেই যে যার প্রয়োজনে আপার কাছে গিয়েছে আর খালি হাতে ফিরেছে! আমি এটাও বিশ্বাস করি আপার সকল ছাত্রীদের ও প্রিয় বড় আপা! আজ তার মতো লোকের কেন এতো কষ্ট???? আর আরও কষ্ট হচ্ছে আমরা কিছুই যেন করতে পারছিনা শুরু থেকে চিকিৎসা চলছে তবুও কেন ভালর দিকে না গিয়ে খারাপ এর দিকে যাচ্ছে! আমি আপার দিকে তাঁকাতে পারি না খুব কষ্ট হয় আপার মাথার চুল নেই মানতে পারি না! আলগা চুল কিনে দিয়েছিলাম সেটাও পরতে পারে না কষ্ট হয়! আমি কেন আগের মতো আমার বোকে ঘুমাতে পারিনা? কেন জড়িয়ে ধরে বলতে পারিনা আপা আমি আছি সব ঠিক হয়ে যাবে যা আপা বলত! আমার সকল কাজে যে প্রেরণা দিত যে দুরে থেকেও আমার ছায়া হয়ে পাশে থাকত! যে সবসময় বলত আমি আছি তো তোর পাশে তোর কোন সমস্যা নেই! আমি কেন বলতে পারিনা আপা আপনার কষ্টগুলো আমাকে দিয়ে আপনি ভাল হয়ে যান!

আপার প্রতি ভালবাসা, অনুভূতি, কষ্ট সবই আছে আগের মতো শুধু প্রকাশ করতে পারিনা যদি আপা কষ্ট পায়! কাছে গিয়ে ও চলে আছি কিছু বলতে পারিনা! নিজে সকল কষ্ট সহ্য করেছে তবুও কখনো কোন দিন কিছুর অভাব আমাদের বুঝতে দেয়নি! টাকা পয়সা, কাপড় চোপড় সব পেয়েছি না চাইতে ও! আমাদের জন্য এতো ছাড় যে দিয়েছে আজ যেন কিছুই করতে পারছিনা শুধু দেখা ছাড়া! নিজের সাধ্য মতো সব করছি তবুও মনে হচ্ছে হয়ত কম হচ্ছে হয়ত আরও করা দরকার ছিল! বাস্তবতা কতো কঠিন ইচ্ছা থাকলেও বাচ্চাদের রেখে চাকরি ছেড়ে পারছিনা সবসময় আপার পাশে থাকতে  শুধু নামাজ পড়ে আল্লাহর কাছে কাদাঁ ছাড়া! বাসাটা ছোট, বাচ্চারার ছোট তাই বলে ভয়েও আপা আসেনা আমার বাসায় দুরে থেকেও আপার কষ্ট শুধু বুকে চেপে ভয়ে বেড়াচ্ছি! আমি জানিনা আল্লাহ কতো দিন আপার হায়াত রেখেছেন!! তবুও আল্লাহর কাছে প্রার্থনা আপা যেন সুস্থ হয়ে যায়! আপার সকলন ছাত্রীরাসহ আমার সকল ভাই বোন, বন্ধু, বান্ধবী ছোট বড় সবার কাছে আপার পক্ষ থেকে ক্ষমা চাচ্ছি যদি কোন কারনে কেউ কোন কষ্ট পেয়ে থাকেন ক্ষমা করে দিবেন! আর যদি একটুখানিও ভালবাসা, আদর, মায়া মমতা পেয়ে থাকেন তা হলে দুহাত তুলে শুধু দোয়া করবেন। যে যেখানেই থাকেন না কেন আল্লাহ যেন আপাকে সুস্থ করে দেয় আপার একমাত্র মেয়েটার জন্য! আপার যেন কষ্ট না হয়!

পৃথিবী থেকে সবাই কে যেতে হবে তবে সেটা সময় এর আগে হলেই দুঃখ হয়! তাছাড়া পৃথিবী ছেড়ে চলে যেতে কষ্ট হতো না যদি না কারও সন্তান না থাকত! আমি জানি আপা নিজের জন্য যত কষ্ট না পাচ্ছে তার চেয়ে বেশি কষ্ট হচ্ছে তার মেয়েটার জন্য! কি করে বুঝাবো আপা আমরা আমাদের শেষ বিন্দু দিয়ে হলেও চেষ্টা করব আপনার মেয়েকে ভাল রাখতে! তবুও মা তো মাই, যার কোন বিকল্প নেই! তাই আপার এই সময়ে তার মেয়ে বলেন, বোন বলেন, আদর বলেন, ভালবাসা বলেন সবকিছুর বিনিময় সবার দোয়া চাই! কারণ জীবনের হিসাব একমাত্র উপরওয়ালাই ভাল জানেন । আমরা শুধু চাইতে পারি! সবাই দোয়া করলে নিশ্চয়ই আল্লাহ একজনের ডাক হলেও কবুল করতে পারেন! সেই ভরসায় আজ আমার এই লেখা কোন সাহায্য বা সহমর্মিতার জন্য নয় ভালবাসা আর হৃদয় দিয়ে শুধু দোয়া করবেন সবাই । ওরা মা মেয়ে ভাল থাকার কিছুটা সময় যেন আল্লাহ দেয়!!!!!

লেখকঃ কলামিস্ট ও উচ্চ মাধ্যমিক থাকা শিক্ষা অফিসার, লালবাগ, ঢাকা 

আরও পড়ুন