মাটিলেপা ঘর

এ এইচ খান

খড়ের চালার গৃহস্থের ওই মাটিলেপা ঘর
আপন ভাবে সবাইকে সে,করে না কাউকে পর।

ভোর হওয়ার সাথেই যেথা রবির আলো ফুটে
না খেয়ে থাকলেও তার হাসি থাকে ঠোঁটে।

তালবনের উঁচু টিলায় দাঁড়িয়ে সূর্যাস্ত সে দেখে
জোৎস্না রাতের চাঁদের আলো উঁকি মারে চালার ফাঁকে।

খালের মত সরু নদী যেথায় চলে বেঁকে
গভীর মায়ায় এত রঙ্গ কে দিয়েছে এঁকে।

গিন্নি তাহার নাই যে শাড়ী, পায়না সুগন্ধি তৈল
বিবর্ণ মুখেই সৌন্দর্য যেথায় করছে রঙ্গিন খেল।

কি সুখ আছে এই আবাসিকে, কি বা মজা ঐ ফ্লাটে
যার যাই হোক, সেথায় সবাই নিজের ফন্দি আঁটে।

নিজের চিন্তায় সেখানে সবাই যে যার রাস্তায় হাঁটে
একটুখানি সুখের জন্য গাধার খাটনি খাটে।

সুখ সুখ করিয়া হন্নে হইয়া সততাকে বিক্রি করে
ভুলিয়া সত্য তখন থেকেই সে অন্যায় পথ ধরে।

লাভ কি হল সুখের জন্য মরিয়া হয়ে ঘোরে
সুখ তো থাকে গৃহস্থের এই মাটিলেপা ঘরে।

আরও পড়ুন