মহীয়সীর কলামঃ পাহাড়ী কিশোরের কিছু কথা

–হোসনে আরা মেঘনা

বান্দরবানের পাহাড়ী অঞ্চল। জনবসতি সমতলভূমির মত এত ঘন নয়। পাহাড়ের চড়াই উৎরাই পেরিয়ে বসবাস করে এখানকার লোকজন। কাঁকড়, পাথর, নুড়ি, কঠিন শিলা ইত্যাদি সহযোগে এ অঞ্চলের মাটি গঠিত।

এই কঠিন মাটির সাথে সমন্বয় করতে হয় বলে এদের মন মানসিকতাও কঠিন হয়। পদে পদে বিরুপ পরিবেশের সাথে লড়াই করে বাঁচতে হয়, তাই এদের হৃদয় কঠিন হয়।

কিন্তু এই সুবোধ দুই কিশোরকে দেখে কে বলবে এরা পাহাড়ী, এরা প্রতিদিন, প্রতিটা ক্ষণ লড়াই করে বাঁচে,এদের জীবনযাত্রা এত সহজ নয়। এরা একটু উন্নত জীবন যাপনের জন্য পরিশ্রম করে দিন রাত।

বান্দরবান এক ফাস্টফুড রেস্তরাতে কাজ করে এই দুই কিশোর। এক জনের নাম জোনাল তংচঙ্গা। বয়স সতেরো বৎসর। পড়ার কথা জিজ্ঞেস করে জানলাম নবম শ্রেণিতে পড়ে। মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান। এত সুন্দর আর মায়ামাখা চেহারা সহজেই আমাকে আকৃষ্ট করলো। সকালে নাস্তা করতে গিয়ে ওদের সাথে টুকটাক কিছু কথা বললাম। ছবি তুলতে চাইলে কেমন যেন সন্তানের মত কাছে এসে দাঁড়ালো। খুব মায়া লাগলো।
বাংলা বললে বুঝতে পারে কিন্তু আমাদের মত করে বাংলা বলতে পারেনা।জোনালের কাছে জানতে চাইলাম রেস্তোরায় কাজ করছে কেন। উত্তরে বলল — করোনার ছুটিতে অযোথা বাড়িতে বসে টাইম লস করতে চায়না। তাই দিনে কাজ করে আর রাতে বাসায় গিয়ে পড়া-লেখা করে। কথা শুনে আমি জোনালকে অনেক ধন্যবাদ দিলাম এবং পিঠ চাপড়ে আশীর্বাদ করলাম। অনেক খুশি হয়ে হাসছিল জোনাল।

অপর ছেলেটির নাম সাতং ব্যোম। ওর বয়স আঠারো বৎসর। সাতং নিম্নবিত্ত পরিবারের ছেলে। নবম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ার পর সংসারের অনটনে আর পড়া হয়নি। তাই সে কাজ করছে। সাতং এর চেহারাটাও মায়াময়। ওর গল্প শুনে বড়ই কষ্ট লাগল। এত সুন্দর একটা ছেলে সাংসারিক অনটনের চাপে পড়া বাদ দিয়ে কাজ করতে হচ্ছে।
আমি সাতংকে আবার পড়া শুরু করার উপদেশ দিলাম। আমার কথা শুনে উৎফুল্ল চিত্তে বলল —-” ম্যাডাম, বই এনেছি। আবার পড়া শুরু করতে চাই “। ওদেরকে আমার পরিচয় দিয়েছিরাম। তাই আমাকে’ ম্যাডাম’ সম্বোধন করে কথা বলছিল।

পাহাড়ী উপজাতি এই দুই ছেলের সাথে কথা বলে আমার খুব ভাল লেগেছে। মনে হচ্ছিল ওরাও সমতল ভূমির সন্তান। ওদের মন এত শক্ত নয়, ওদের আচরণ খুবই অমায়িক এবং সহজ সরল। মনে হচ্ছিল এরা যেন কোমল মাটির মায়ের সন্তান।

জোনাল, সাতং এর মত আরো পাহাড়ী হাজারও সন্তানের জন্য রইল আমার বুক ভরা ভালবাসা ও অভিন্দন। তোমরাও লিখা-পড়া শিখবে, অনেক বড় হবে। পাহাড়ের কঠিন শিলাকেও জয় করবে,উন্নত জীবন যাপন করবে।
হোসনে আরা মেঘনা  লেখক,কবি ও সহ-সম্পাদক, মহীয়সী।

আরও পড়ুন