ছেলেকে বিয়ে করাবেন ছেলের জন্য নাকি …?

সোনিয়া ইসলাম

বিয়ের পাত্র দেখতে দেখতে আমি হয়ে গিয়েছিলাম অত্যন্ত বিরক্ত। অত্যন্ত মেধাবী ছাত্রী হয়েও S. S. C পরীক্ষার পর থেকেই পাত্র দেখা শুরু করল বাবা। ছেলেপক্ষ দেখতে আসল, আমি দৌড়ে বাথরুমে গিয়ে মুখে কালি মাখালাম।তারপর সবাই ডাকাডাকি শুরু করলে মুখ ধুয়ে বের হলাম। ছেলে পক্ষের সামনে উপস্থিত হলাম। সব কথার খুব রাগী রাগী উত্তর দিলাম। তারপরও বাবা আমার বিয়ের ব্যবস্হা করে ফেলে সেই ছেলের সাথেই ।

আমার খুব ইচ্ছা পড়াশুনা করব। কিন্তু বলেও কোন লাভ হচ্ছে না। তারিখ দিয়ে দিল বিয়ের। আমার স্বপ্ন বুঝি শেষ ।এদিকে আমার রেজাল্ট ছিল স্টার আর্টস থেকে দুটো লেটার সহ। আমার মনে কোন আনন্দ নেই ।কারন কি হবে রেজাল্ট দিয়ে? জীবনে কলেজের চেহারা আর দেখা হবে না। অনুষ্ঠানের ঠিক দুদিন আগে বড় ভাই বড় মামা দুজনে আপত্তি তোলে। ছেলের বাবার কার্ড বিতরণ করা শেষ। তো মামা বলল আমার আদরের ভাগ্নিকে বিয়ের পর পড়াশোনা করতে সুযোগ দিবেন তো? ছেলের বাবা বলল ভর্তি করিয়ে দিব কলেজে।কিন্তু ক্লাস করতে পারবে না। আমি পড়াব বাসায়।
সদ্য বউ মারা গেছে লোকটার। তাই বাড়িতে থাকার কোন মেয়ে নাই। ছেলে বিয়ে করিয়ে বাড়িতে থাকতে হবে। ক্লাস করতে পারবে না। ঢাকায় নিজেদের সাত তলা বাড়ি। আরও অনেক প্রভাব প্রতিপত্তি।

তো বাবা গেল ঘটকের কাছে শিক্ষিত মুফতি। তাকে সব খুলে বলল বাবা। তখন ঘটকের টনক নড়ল। সে খুব জ্ঞানী। তিনি ছেলের বাবা কে ডাকলেন। বললেন ছেলেকে বিয়ে করাবেন ছেলের জন্য নাকি বাড়ি পাহারা দেয়ার জন্য? তিনি বললেন ছেলেকে বিয়ে করাতে হয় একমাত্র ছেলের প্রয়োজনে। ছেলের বউ আপনার ব্যক্তিগত কোন কাজ করতে বাধ্য নয়। ইসলাম এটা বলে না। ইসলাম মেয়েদের সম্মানের সাথে রাখার নির্দেশ। স্বামীর সেবা করলে মেয়েরা অনেক সওয়াব পাবে। তবে এক্ষেত্রেও পুরুষের কর্তব্য স্ত্রীর সমস্ত কাজে আরাম দেয়ার ব্যবস্থা করা যতটুকু তার সামর্থ্য আছে।যদি আপনি আপনার বউ মারা গেছে বলে ঘর সংসার বা আপনাকে দেখাশুনার জন্য এই মেয়েকে ছেলের বউ বানাতে চান তবে এই বিয়ে হবে না। তার চেয়ে আপনি নিজেই আবার বিয়ে করেন তারপর এই মেয়েকে আপনার ছেলের সাথে বিয়ে দেয়ার চিন্তা করব। সেদিন লোকটি অনেক কান্নাকাটি করে বলে আমার মান সম্মান সব শেষ আমাকে তো সাগরের মাঝখানে নৌকায় রেখে বৈঠা নিয়ে চলে গেলেন। এখন আমি কি করব? সেই সময় আমার বাবা আর ঐ লোকটার গলা ধরে কান্না আর বিদায় হল। তারপর একদিন শুনি ছেলের বাবা বিমান বাহিনীর অবসর প্রাপ্ত বড় কর্মকর্তা সাহেব নিজেই বিয়ে করে নিয়ে পর ছেলেকে বিয়ে করিয়েছেন। আর আমার পড়াশোনা পুরাদমে ভালমত চলছে।

লেখকঃ কবি ও সাহিত্যিক 

 

 

আরও পড়ুন