ইতালির বাংলাদেশ দূতাবাস আবার দূর্নীতিমুক্ত হয়ে উঠবে

মাঈনুল ইসলাম নাসিম, ইতালি থেকে

তিন দিকে সাগর এক দিকে আল্পস পর্বতমালা মাঝে দুই লাখ বাংলাদেশির রক্ত ঘামে সচল রয়েছে যে দেশের অর্থনীতির চাকা সেই দেশটিই আমাদের অপরূপা ইতালি। চলতি ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে প্রথম কোন বাংলাদেশি সরকার প্রধান হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইতালীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় কিজি প্যালাসে গার্ড অব অনার সহ রাষ্ট্রীয় সংবর্ধনা দেয়া হয়, যা ছিলো বাংলাদেশ ও বাংলাদেশিদের জন্য আকাশচুম্বী সম্মানের। কিন্তু তার প্রতিদান দিতে পারেনি বাংলাদেশ।

রাষ্ট্রীয় সম্মানের এক মাস না যেতেই ভয়াল মহামারিতে ইতালি যখন মৃত্যু উপত্যকা তখন মার্চ-মে গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন ছিলো রোমের বাংলাদেশ দূতাবাস ও মিলানের কনস্যুলেট জেনারেল। ভারত পাকিস্তান নেপাল শ্রীলঙ্কার মতো দেশ যেখানে কোন না কোন ভাবে পাশে ছিলো ইতালির কঠিন দুঃসময়ে সেখানে রোম ও মিলানে আমাদের দুর্নীতিবাজ স্যারেরা ছিলেন অচেতন। মহামারি কূটনীতির (পেনডেমিক ডিপ্লোম্যাসি) অক্ষরজ্ঞান তাদের না থাকায় নানা ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় বাংলাদেশ যার রেশ এখনো কাটেনি।

সামান্য পরিমাণে সিম্বোলিকলি হলেও বাংলাদেশের তখন সুযোগ ছিলো বন্ধুরাষ্ট্র ইতালির পাশে থাকার। কিন্তু জেগে ঘুমানো অফিসারদের ঘুম ভাঙেনি কখনোই। আশার কথা, বহু ঘাটের জল ঘোলা করে হলেও অবশেষে পরিবর্তনের হাওয়া বইতে শুরু করছে ইতালিতে। নতুন রাষ্ট্রদুত হিসাবে ইতালিতে গতকাল নিয়োগ পেয়েছেন শামীম আহসান । দুর্নীতি মুক্ত হয়ে বাংলাদেশ দূতাবাস আবার হয়ে উঠবে প্রবাসী বান্ধব মিশন। দালাল সিন্ডিকেটের হাতে জিম্মি থাকবে না নিরীহ রেমিট্যান্স যোদ্ধারা। ইতালি-বাংলাদেশ ঐতিহাসিক সম্পর্কের পালেও সহসাই লাগবে হাওয়া এই প্রত্যাশা।

 মাঈনুল ইসলাম নাসিম, অনলাইন এক্টিভিস্ট

আরও পড়ুন