আজ বিশ্ব খাদ্য দিবস

নজরুল ইসলাম, নওগা

এবারের প্রতিপাদ্য -“আমাদের কর্মই আমাদের ভবিষ্যত, পুষ্টিকর খাদ্যেই হবে আকাঙ্খিত ক্ষুধামুক্ত পৃথিবী।”
মানুষের মৌলিক চাহিদাগুলোর মধ্যে খাদ্য অন্যতম। তাই চাষযোগ্য জমি সংরক্ষণ, জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ, কৃত্রিম বনায়ন, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অর্থনীতি নিয়ন্ত্রণ ইত্যাদি কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে পৃথিবীর সবগুলো উন্নত এবং উন্নয়নশীল দেশ, বৃহৎ ও গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যস্ত হয়ে আছে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে। খাদ্য নিরাপত্তা বলতে খাদ্যের লভ্যতা এবং মানুষের খাদ্য ব্যবহারের অধিকারকে বোঝায়। কোন বাসস্থানকে তখনই “খাদ্য নিরাপদ ” বলে মনে করা হয়, যখন এর বাসিন্দারা ক্ষুধার্ত অবস্থায় বসবাস করেন না। কৃষি মন্ত্রনালয়,খাদ্য মন্ত্রনালয় এবং FAO এর উদ্যোগে বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে বিশ্ব খাদ্য দিবস /২০১৯।

এ উপলক্ষে মহামান্য রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ তাঁর দেওয়া বানিতে বলেছেন – খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের পাশাপাশি পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিতের বিষয়ে নজর দিতে হবে । এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর বাণীতে পুষ্টিকর খাবারের পাশাপাশি নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে আরো প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.