বঙ্গসাহিত্য সম্মিলনের ৬৯তম অধিবেশন এবার রাজশাহীতে অনুষ্ঠিত

জসিম উদ্দিন বিজয়, রাজশাহী

পশ্চিমবঙ্গের অন্যতম প্রাচীন সংগঠন ‘বঙ্গসাহিত্য সম্মিলন’ এর ৬৯তম সাহিত্য অধিবেশন এবার বাংলাদেশের রাজশাহীতে অনুষ্ঠিত হলো। ৩১ ডিসেম্বর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনস কমপ্লেক্স কনফারেন্স হলে এ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনায় ছিলো রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাহিত্য সংগঠন শব্দকলা। ‘বঙ্গসাহিত্য সম্মিলন’ এর সভাপতি ভারতের পাঁচজন রাষ্ট্রপতি কর্তৃক সম্মাননাপ্রাপ্ত স্বাধীনতা সংগ্রামী পূর্ণেন্দু প্রসাদ ভট্টাচার্যের সভপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলনটি উদ্বোধন করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফজলুল হক। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাবি সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম, নাট্যব্যক্তিত্ব জয়ন্ত রসিক, ড. শিশুতোষ সামন্ত, কবি গোপাল চক্রবর্তী, কথাশিল্পী নাজিব ওয়াদুদ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন শব্দকলাপ্রধান প্রফেসর ড. মাহফুজুর রহমান আখন্দ।

বক্তাগণ বলেন, বাংলাদেশ এবং ভারত আলাদা দুটি ¯^তন্ত্র রাষ্ট্র হলেও ভাষাগত ঐক্য আমাদের চিন্তাচেতনাকে কাছাকাছি করে রাখে। বাংলাদেশের ভাষা আন্দোলন এবং মুক্তিসংগ্রামের জন্য আমরাও গর্ববোধ করি। নানামুখি আগ্রাসনে আক্রান্ত হলেও বাংলাভাষার সমৃদ্ধি ও উন্নয়নে দুই দেশের লেখদেরকেই আন্তরিকভাবে কাজ করে যেতে হবে।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ড. দীনেশচন্দ্র ভট্টাচার্য, ড. মনোরোমা পোল্ল্যে, জয়া সান্যাল, কথাশিল্পী দেওয়ান মোহাম্মদ শামসুজ্জামান, কবি মনজু রহমান, ড. ফজলুল হক তুহিন, ড. রুমী শাইলা শারমিন, কবি আলমগীর কবির হৃদয় প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ভারতের ২১জন কবি-সাহিত্যিকসহ দেড়শতাধিক লেখক-সাহিত্যিক উপস্থিত ছিলেন। অতিথিবৃন্দসহ

লেখাপাঠে অংশ নেন কবি অসিত রঞ্জন দাশ, সাবিত্রী কাহালী, দীপেন ভাদুড়ি, তাপস সাহা, সবিতা বেগম, রথীন্দ্রনাথ বসাক, শক্সখ ভট্টাচার্য, মুকুল কেশরী, মুহাম্মদ শরিফউদ্দিন, শিরিন শরীফ, এ বি সিদ্দিকী, জামাল দ্বীন সুমন, এরফান আলী এনাফ, শাহানা ইয়াসমিন মুক্তা, শেখ তৈমুর আলম, নাহিদা আকতার নদী, জসিম উদ্দিন বিজয়, দীননাথ চক্রবর্তী, অনিন্দিতা পাল, দীপক রঞ্জন কর, বাসুদেব দাস, কামাক্ষা রঞ্জন দাস, রণেন্দ্র ধাড়া, অশোক কাহালী প্রমুখ।

 

আরও পড়ুন