মসজিদ সোফিয়া হচ্ছে তুরস্কের “অপূরণীয়” কাঠামো–এরদোগান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রিসেপ তাইয়িপ এরদোগান রবিবার বলেছেন- তুরস্কের সামষ্টিক স্মৃতিতে হাজিয়া সোফিয়ার স্থানটি “অপূরণীয়”। আর এটি সাম্প্রতিক মসজিদে রূপান্তর করার মধ্যমে জনগণের দাবী পূর্ণ হয়েছে ।

তুরস্কের ক্রিটার ম্যাগাজিনের সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে সোফিয়া মসজিদ নিয়ে বক্তব্য রাখার পাশাপাশি রাষ্ট্রপতি লিবিয়াতে আঙ্কারার মিশন, পূর্ব ভূমধ্যসাগর, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই, করোনভাইরাসে বিরুদ্ধে ব্যবস্থা এবং আরও অনেক কিছু তুলে ধরেছিলেন।

তিনি বলেন-“এটি এমন একটি কাঠামো যেখানে ইস্তাম্বুল বিজেতা মেহমেত (ফাতিহ সুলতান মেহমেত) ইস্তাম্বুল জয় করার পর প্রথম শুক্রবারের নামাজের আয়োজন করেছিলেন এবং তারপরে এই বিজয়ের প্রতীক হিসাবে এটিকে একটি মসজিদে রূপান্তর করেছিলেন ।

তিনি বলেন “১৯৩৪ সালে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের মাধ্যমে একে যাদুঘরে রূপান্তরিত করে তুর্কি জনগণকে “আহত” করা হয় ।  এখন  কাউন্সিল অব স্টেট থেকে  তাকে পুনরায় মসজিদে রূপান্তরিত করার অনুমতি দেওয়ার মাধ্যমে বুঝা যায় যে  জনসচেতনা পুনরুদ্ধার হচ্ছে ।”

তিনি আরও বলেন-  “দেশের ভিতরে ও বাইরে উভয় পক্ষের প্রতিক্রিয়ার কোনও মূল্য নেই আমাদের কাছে। হাজিয়া সোফিয়ার মর্যাদার বিষয়ে তুর্কি জাতি ছাড়া কারও বক্তব্য গ্রহণযোগ্য নয় । তিনি বলেন, “এটি একটি ঘরোয়া বিষয় এবং বিদেশী দেশগুলিকে অবশ্যই আমাদের সিদ্ধান্তকে সম্মান করতে হবে।”

তুরস্কের শীর্ষ প্রশাসনিক আদালত শুক্রবার ১৯৩৪ সালের সরকারের ডিক্রি বাতিল করে এটিকে মসজিদে রূপান্তরিত করে । এই ডিক্রি বলে হাজিয়া সোফিয়াকে একটি যাদুঘরে পরিণত করা হয়েছিল । দীর্ঘ প্রতীক্ষিত এই রায়ের মাধ্যমে ইস্তাম্বুলের আইকনিক কাঠামোকে মসজিদ হিসাবে ব্যবহারের পথ উন্মুক্ত হয়ে গেল।

বিশ্বের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক হেরিটেজ ঐতিহ্যবাহী হাজিয়া সোফিয়া ষষ্ঠ শতাব্দীতে বাইজেন্টাইন সাম্রাজ্যের রাজত্বকালে নির্মিত হয়েছিল এবং গ্রীক অর্থোডক্স চার্চের আসন হিসাবে ব্যবহার করা হতো । ১৪৫৩ সালে ইস্তাম্বুলের অটোমান বিজয়ের মাধ্যমে এটি একটি রাজকীয় মসজিদে রূপান্তরিত হয়েছিল। পরবর্তীতে ১৯৩৫ সালে কঠোরভাবে ধর্মনিরপেক্ষ একক-দলীয় শাসনকালে এই কাঠামোটি যাদুঘরে রূপান্তরিত করা হয়েছিল ।  তবে জনগণের দাবীর প্রেক্ষিতে এটি মসজিদে পরিণত করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছিল। সব সময় সাধারণ জনগণের দাবী ছিল এটি আবার মসজিদে রূপান্তরিত হোক  ।

সূত্রঃ ডেইলি সাবাহ, তুরস্ক 

 

আরও পড়ুন