মিশরে মোহাম্মদ বদিসহ মুসলিম ব্রাদারহুডের অনেক নেতার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

গতকাল মিশরের কোর্ট অফ ক্যাসেশন  সহিংসতা ও হত্যার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করে মুসলিম ব্রাদারহুডের সর্বোচ্চ পরামর্শদাতা মোহাম্মদ বদি এবং অন্যান্য ইসলামপন্থীদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছে।

যে মামলার উপর ভিত্তি করে তাদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে তা ২০১৩ সালের । সরকারী মুখপাত্র স্বরূপ রাষ্ট্র পরিচালিত আল-আহরাম পত্রিকা জানিয়েছিল “ সেই সময় আসামীরা একটি থানায় প্রবেশ করে অস্ত্র আটক করেছিল এবং মিনিয়ার দুই জন  পুলিশকে হত্যা করেছিল । এরপর তারা ৩১ জন ইসলামপন্থীকে কারাগার থেকে মুক্ত করতে সহায়তা করার পাশাপাশি পুলিশের গাড়িবহর ও নথিতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল।”

বিচার বিভাগীয় সূত্র জানিয়েছে, আদালত ক্যাসেশন বাদিসহ ১৮৬ জন আসামীর তাদের আপিল প্রত্যাখ্যান করেছে এবং যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে । তবে এদের মধ্য থেকে ৬৩ জনকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে। অবশ্য  সুনির্দিষ্টভাবে জানা যায় না যে কতজন আসামীকে চূড়ান্তভাবে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

একটি পৃথক মামলায়, ২০১৩ সালে কায়রোতে ১০ জনের হত্যার আদেশ দেওয়ার জন্য মোহাম্মাদ বদিকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। বিদেশের জন্য গুপ্তচরবৃত্তি ও সহিংসতা সংক্রান্ত মামলায় তিনি আরও তিনটি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড পেয়েছিলেন।

মিশর সরকারের ভাষ্য মতে জুলাই ২০১৩ সালে প্রাক্তন ইসলামপন্থী রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ মুরসি ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করে আসছে মিশর । মিশর সরকার বলেছে যাদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে তারা কয়েকশ পুলিশ, সেনা ও বেসামরিক মানুষকে হত্যা করেছে। গতকাল বদিকে দেয়া এই যাবজ্জীবন কারাদণ্ড মোহাম্মাদ বদির পঞ্চম যাবজ্জীবন কারাদণ্ড !

সূত্রঃ ডেইলি নিউজ ইজিপ্ট

 

আরও পড়ুন