ক্লাস বা পরীক্ষা ছাড়াই পরবর্তী ক্লাসে উঠবে ইথিওপিয়ার শিক্ষার্থীরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

অষ্টম ও দ্বাদশ শ্রেণিতে জাতীয় পরীক্ষায় অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীদের ব্যতীত প্রাথমিক ও মাধ্যমিক সকল শিক্ষার্থীকে পরবর্তী গ্রেডে পাসের জন্য ইথিওপিয়ার শিক্ষা মন্ত্রণালয় তার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে এক্ষেত্রে কি ধরণের আচরণ করা হবে  সে বিষয়ে কোন  সিদ্ধান্ত জানায়নি  বিজ্ঞান ও উচ্চশিক্ষা মন্ত্রনালয় ।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যোগাযোগ পরিচালক হারেগুয়া মামো বলেছেন-

“কারণ আমাদের পরিকল্পনাটি হল আমাদের সমস্ত ছাত্রকে তাদের শিক্ষায় ফিরিয়ে আনা এবং আমরা আমাদের সমস্ত শিক্ষার্থীদের পরবর্তী গ্রেডে পাস করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি”

প্রতিবেশী কেনিয়ায় যেখানে ইথিওপিয়ার তুলনায় শিক্ষার মান উচ্চমানের বিবেচনা করা হয়, সেখানে ২০২০ এর পুরো সেশন বাতিল বলে ঘোষণা করা হয়েছে । অর্থাৎ যে ছাত্র যে ক্লাসে আছে সে ছাত্র সেই ক্লাসেই থাকবে । প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলি আগামী বছর  ২০২১ সালের জানুয়ারিতে খুলবে । আর পর্যায়ক্রমে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলির  পুনরায় খোলার মাধ্যমে হবে বলে জানা গেছে ।

ইথিওপিয়ায় প্রায় ২ কোটি শিক্ষার্থী রয়েছে।বিদ্যালয়গুলো গত পাঁচ মাস ধরে বন্ধ আছে এবং যতক্ষণ না সরকার ঘোষণা দেয় ততদিন বন্ধ থাকার এই সিদ্ধান্ত বলবৎ থাকবে।

১ লা  মার্চ প্রধানমন্ত্রী অবি আহমেদ ঘোষণা করেছিলেন যে স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয় দুটি সপ্তাহের জন্য ক্লাস বন্ধ রাখবে। ১ লা  মার্চ বিজ্ঞান ও উচ্চশিক্ষা মন্ত্রী হিরুটওয়াল্ডিমারিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে কীভাবে কাজ করা উচিত সে সম্পর্কে আরও নির্দেশনা দিয়েছিলেন। অনেকের পক্ষে এটি অনুসরণ করা সহজ আদেশ ছিল না যেহেতু প্রতিষ্ঠানগুলি এই লক্ষ্যে খুব কম প্রস্তুতি নিয়েছিল। তবে,  জনসাধারণ সিদ্ধান্তটির খুব প্রশংসা করেছিল ।

হেরেগুয়ার মতে, গ্রেড ৮ এবং গ্রেড ১২ শিক্ষার্থীরা বাধ্যতামূলক হওয়ার কারণে পরীক্ষা দেওয়ার আগে দেড় মাসের জন্য ক্লাস করবে।হেরেগুয়ার বক্তব্য অনুসারে, পরিস্থিতি আরও উন্নত হলে মন্ত্রণালয় ২০২১ সালের সেপ্টেম্বরে ক্লাস শুরু করার পরিকল্পনা করছে।

ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মগুলি ছাড়াও, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পাবলিক টেলিভিশনগুলি সব বয়সের শিক্ষার্থীদের জন্য কোর্স সরবরাহ করার পাশাপাশি শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের জন্য ব্যবহার করছে। দু’সপ্তাহ আগে আডিস আবাবা সিটি এডুকেশন ব্যুরো গ্রেড এইটের শিক্ষার্থীদের জন্য মডেল পরীক্ষার ব্যবস্থা করেছিল ।

ইথিওপিয়া এখন একটি ৮-৪-৪ ব্যবস্থার অনুসরণ করে এবং বর্তমানে প্রাথমিক পড়াশোনা থেকে মাধ্যমিক এবং উচ্চ বিদ্যালয়ে ; এখান থেকে  বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়ার জন্য শিক্ষার্থীদের জাতীয় পরীক্ষায় অংশ নিতে হয় ।

সূত্রঃ ক্যাপিটাল, ইথিওপিয়া

আরও পড়ুন