ভাল্বযুক্ত মাস্ক ও ফেসশিল্ড করোনাভাইরাস ছড়ায় !

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে স্বাচ্ছন্দ্যের সাথে শ্বাস-প্রশ্বাস নেবার জন্য অনেকেই ভাল্বযুক্ত মাস্ক এবং ফেসশিল্ড ব্যবহার করে থাকেন । কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে এইসব উপাদান করোনা প্রতিরোধের চেয়ে করোনা প্রসারণেই বেশী ভূমিকা রাখতে পারে বলে আমেরিয়কান গবেষকদের গবেষণায় এই তথ্য উঠে এসেছে ।

ইউএসএর গবেষণার একটি সিমুলেশন মডেলের মাধ্যমে  জানা যায় যে, প্লাস্টিকের ফেসশিল্ড এবং ভাল্ব লাগানো মাস্কগুলি খুব সহজেই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির হাঁচি  এবং কাশি দেওয়ার সময়  খুব বিস্তীর্ণ অঞ্চল জুড়ে  হাঁচি বা কাঁশি থেকে নিঃসৃত অদৃশ্য কণাগুলি ছড়িয়ে দিতে পারে । আর ব্যবহৃত  এই মাস্ক এবং ফেসশিল্ড নিজেরাই COVID-19 এর বিস্তার প্রতিরোধে অকার্যকর হয়ে পড়ে ।

মার্কিন জার্নাল ফিজিক্স অফ ফ্লুয়েডে  (Physics of Fluid) সেপ্টেম্বরের শুরুর  দিকে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনের মাধ্যমে  জানা যায় যে ফ্লোরিডা আটলান্টিক বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা পাতিত জল এবং গ্লিসারিনের ছোট ছোট কনাগুলো ট্র্যাক করার জন্য উল্লম্ব এবং অনুভূমিক লেজার শীট ব্যবহার করে পরীক্ষা করে দেখেছেন শ্বাস নেবার জন্য ভাল্বযুক্ত মাস্ক এবং প্লাস্টিকের ফেস শিল্ড করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে তেমন ভূমিকা রাখতে পারে না বরংএ ভাইরাস ছড়াতে ভূমিকা রাখবে বলে গবেষণায় উঠে এসেছে ।

গবেষকরা দেখেছেন যে ফেস শিল্ড সামনে থেকে আসা পানির কনাকে বাঁধা দেয় কিন্তু  “বহিষ্কারকৃত পানির কণাগুলো  তুলনামূলক স্বাচ্ছন্দ্যে ভিসারের চারদিকে ঘুরতে পারে এবং একটি বিশাল অঞ্চল জুড়ে ছড়িয়ে যেতে পারে ।”

শ্বাসকষ্টক যাতে না হয় সেজন্য অনেকেই  ভাল্বযুক্ত মাস্ক ব্যবহার করে থাকেন । এই মাস্কগুলোই গুব একটা নিরাপদ নয় । এই গবেষণার মাধ্যমে জানা যায় যে  ” যদি ভাল্ব যুক্ত মাস্ক পরিধান কারী ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত হয়ে থাকে তাহলে টার এই ভাল্ভের মধ্য দিয়ে করোনা ভাইরাস বিনা বাধায় ছড়িয়ে পরবে এবং এই মাস্ক করোনা প্রতিরোধে অকার্যকর হয়ে পরবে ।”

গবেষকরা উপসংহারে বলেছিলেন যে যদিও উভয় প্রকারের সুরক্ষা জনগণ নিজেদের স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য নিয়ে থাকেন তবে এর চেয়ে উচ্চমানের কাপড় বা প্লেইন ডিজাইনের মেডিকেল মাস্কগুলি ভাইরাসের বিস্তার রোধে সহায়তা করার ক্ষেত্রে ভালো ভূমিকা রাখে এবং অগ্রাধিকার পাবার যোগ্য ।

সূত্রঃ ডেইলি সাবাহ

আরও পড়ুন