মা-বাবাই বাচ্চার আয়না

আজিজা সুলতানা রোজী

আয়না যেমন তার সামনের দাঁড়ানো ব্যক্তির প্রতিচ্ছবি ফুটিয়ে তোলে বাচ্চার দিকে তাকালে তেমন মা-বাবার সম্পর্ক ফুটে উঠে । গর্ভাবস্থা থেকেই মা-বাবার সম্পর্কের প্রভাব শুরু হয় । মায়ের অভ্যাস, মায়ের সাথে করা আচরণ, মায়ের পরিবেশ ইত্যাদি একটু একটু বাচ্চার চরিত্রে প্রবেশ করে । গর্ভাবস্থায় মা যদি মসজিদে যান। তেলাওয়াত করেন তাহলে একরকম প্রভাব পড়বে । যদি তর্ক- ঝগড়া করেন গান সিরিয়াল নিয়ে ব্যস্ত থাকেন তাহলে অন্যরকম প্রভাব পড়বে ।

শিশু প্রথম ভালবাসা কোত্থেকে শেখে? মা-বাবাই ভালবাসার পয়লা সবক দেন । বাচ্চা কাঁদলে কোলে নেন, আদর দেন, ভালবাসা দেন । ভালবাসার উপলব্ধিতে তার কান্না থামে । এভাবে মা-বাবার নিজেদের ভালবাসা, স্রস্টাকে ভালবাসা, আত্মীয়-প্রতিবেশী, মানুষদের ভালবাসা, জিবের ভালবাসা ইত্যাদির মধ্য দিয়ে ভালবাসা শিখতে থাকে । মা-বাবার একসাথে থাকা, খাওয়া, কাজ করা, হাসিমুখ এসব দৈনন্দিন মুহূর্তগুলোই শিশুর Comfort Zone তৈরি করে, Confidence বাড়ায় । মা-বাবার সম্পর্কের মধ্যে দূরত্ব থাকলে বাচ্চারা ভীতি ও Insecuirity এর মধ্যে বড় হবে । এজন্যই বলা হয়ে থাকে Culture start from parents and home . Swapna Nair এর মতে যেসব বাচ্চারা Positive environment এ থাকে তারা Little explorers (Secure, confident, good self esteem) পক্ষান্তরে Negative environment এর বাচ্চারা Withdrawn (Shy, low self esteem, very low in confidence) difficulty in forging bond, opposite gender child gets affected এ অবস্থার মধ্য দিয়ে যায় ।
শিশুকে সুন্দর পরিবেশ দিতে অর্থের প্রয়োজন নেই । মা-বাবা ও অন্যদের সাথে তাদের সুস্থ ও সুন্দর সম্পর্কই বাচ্চাকে উদীয়মান করবে ।

লেখকঃ নারী ও শিশু বিষয়ে কলাম লেখক

আরও পড়ুন