নারী শিক্ষার ব্যাপারে ইসলাম কি বলে?

মিরাজ রহমান

পবিত্র কোরআনে বারবার মানুষকে পড়াশোনা করতে, জ্ঞানার্জনে ব্রতী হয়ে আল্লাহর সৃষ্টিকে গভীরভাবে অনুধাবন করতে বলা হয়েছে। কিন্তু কোথাও জ্ঞান শিক্ষার কথা এককভাবে পুরুষদের উদ্দেশ্য করে বলা হয়নি। আর সে জন্য মহানবি [সা.] দ্বিধাহীনভাবে ঘোষণা করেছেন, প্রত্যেক মুসলিম নর-নারীর জন্য জ্ঞানার্জন ফরজ-অবশ্য কর্তব্য। তাঁর অনুসারীরা মূর্খ হোক, এমন কামনা করেননি আল্লাহর রাসুল [সা.]। তাই তিনি সাবধান করে বলেছিলেন, অজ্ঞতা-মূর্খতা অপেক্ষা বড় দারিদ্র্য আর নেই। জ্ঞানীর নিদ্রা মূর্খের উপাসনা অপেক্ষা উত্তম। আরবের মাটিতে উম্মি নবি [সা.] নারী-পুরুষ নির্বিশেষে শিক্ষা গ্রহণকে ফরজ বলে ঘোষণা করেছেন এবং শিক্ষা ক্ষেত্রে নারীর অধিকারকে স্বীকৃতি দিয়ে গেছেন। ইসলামের প্রাথমিক যুগের নারীরা শিক্ষা ক্ষেত্রে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন। হজরত মুহাম্মদকে [সা.] শিক্ষানুরাগী মহিলারা একবার বললেন, আপনি জ্ঞান শিক্ষা দেয়ার জন্য সবসময় পুরুষদের দ্বারা পরিবেষ্টিত থাকেন। তাই আমাদের জন্য একদিন নির্দিষ্ট করুন। মহানবি [সা.] সে অনুযায়ী তাঁদের শিক্ষা প্রদানের ব্যবস্থা করেছিলেন। এমনকি তিনি প্রতিনিধি পাঠিয়েও নারীদের শিক্ষা দিতেন। ফলে অনেক মহিলা জ্ঞানীর উদয় হয়েছিল, যারা ইসলামের মহান শিক্ষা প্রচারে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ইসলামী দর্শন নারী শিক্ষার উৎসাহদাতা ও পথপ্রদর্শক। ইসলামে নারী শিক্ষার সুযোগ সীমিত এমন ধারণা সম্পূর্ণ ভ্রান্ত। মুসলিম সমাজেও মহিলা শিক্ষক, অধ্যাপক, আইনজীবী, শিক্ষাবিদ, চিকিৎসক, বিজ্ঞানী, দার্শনিক ও প্রযুক্তিবিদের প্রয়োজনীয়তা অস্বীকার করা যায় না। সুতরাং যত দূর সম্ভব ইসলামী জীবনবিধান প্রদত্ত সীমারেখা ও অনুশাসন মেনে নারীর জন্য উপযুক্ত শিক্ষা তথা প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা উচিত। ধর্মীয় শিক্ষায় উচ্চপর্যায়ের শিক্ষা লাভের জন্য কোরআন তাফসির, হাদিস, ফিকাহ ইত্যাদি শাখায় তাদের জন্য পঠন-পাঠনের বিশেষ ব্যবস্থা করা একান্ত প্রয়োজন। এমনকি সুস্থ মাতৃত্বের জন্য মেয়েদের পৃথক শিক্ষারও প্রয়োজন রয়েছে। নারী শিক্ষার প্রধান বাধা হলো উপযুক্ত পরিবেশের অভাব। নৈতিক ও ধর্মীয় মূল্যবোধ বিসর্জন দিয়ে কোনো ধরনের শিক্ষাকে ইসলাম সমর্থন করে না। অনেকে ভাবেন, পর্দা প্রথা নারী শিক্ষা ও নারী প্রগতির অন্তরায়। কিন্তু ইসলামের পর্দা নারীর মান-সম্মান, সম্ভ্রম ও ব্যক্তিত্বের পরিচায়ক। পর্দা প্রথার দোহাই দিয়ে নারীকে গৃহবন্দি রেখে শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত করা ইসলামের অনিন্দ্য সুন্দর জীবনবিধানের প্রতি অবজ্ঞা করা ছাড়া কিছু নয়।

লেখক: সাংবাদিক।

আরও পড়ুন

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.