ব্রাউজিং শ্রেণী

কবিতা

বাবা

--নুরে আলম মুকতা প্যাডেল চালাই ঠেলা ঠেলি নেই আমার ক্লান্তি , তুমি বাছা মানুষ হও দেবে আমায় শ্রান্তি । মাথায় আমার তপ্ত দুপুর ঘাম ঝরে শরীরে , চোখে আমার অনেক স্বপন ভাসিয়ে দিলাম পাথারে । খুদ খাবারের জন্যে আমি ভিক্ষা কারো মাঙিনা ,…

স্বাগতম মাহে রমজান

-দিল আফরোজ রিমা চারিদিকে দুঃখ-বেদনা বালা-মুসিবত, নিস্তব্ধ পরিবেশ হাহাকার, ক্রন্দন, মৃত্যুর হাতছানি বসে আছি বন্ধ দরজায় জায়নামাজে অশ্রুসিক্ত হয়ে তোমারই অপেক্ষায়- হে মাহে রমজান। গ্রীষ্মের খররৌদ্রতাপ তেজদিপ্ত সুর্যের অট্রহাসি তপ্তবায়ু…

কাবিননামা

কাবিননামা হারিয়ে গেছে সাক্ষী গেছে মরে বউয়ের সঙ্গে এখন আমি চলবো কেমন করে। কাজীর কাছে ফোন করেছি বন্দি সেও জেলে ঘুরতে গেছি বউকে নিয়ে কাবিননামা ফেলে। ভাবছি বসে হিসাব কষে আবার করি বিয়ে কাজী অফিসে যাচ্ছি এখন পুরাতন বউ নিয়ে।

সেই বড়ই যখন হলাম

আজিজা সুলতানা রোজী যখন আমি ছোট ছিলাম সখটি ছিল সাজার, চুড়ি,মালা, দুল না দিলে মুখটি হতো বেজার। ইচ্ছে হতো সবখানেতে ঘুরি। "নিষেধ" ছিল আমার পায়ের দড়ি। রিমোর্ট যদি নিজের হাতে পেতাম, জানি নাতো কোন চ্যানেলে যেতাম। পেতাম যদি নিজের একটা ঘর,…

মায়ের জন্য পদাবলি

মায়ের জন্য পদাবলি      হাসান ওয়াহিদ শীতমাখা শুকনো সন্ধে নেমে আসে আমাদের গ্রামের বাড়ির বারান্দায়--- ধুলো আর শিশিরের কণাগুলো অনায়াস দক্ষতায় সাঁতরে পার হয়ে যাচ্ছে নবান্নের আঁতুড়ঘর। পাশে দাঁড়িয়ে থাকা সজনেগাছের ছায়াঘন আলোয় কৈশোর পার…

শেখ মুজিব (জন্মদিনের শ্রদ্ধাঞ্জলি)

-নুরে আলম মুকতা কবরের পাশে দাঁড়িয়ে দেখ, একটি মানুষ দাঁড়িয়ে। মৃত্যুকে করে ভ্রুকুটি, সাত কোটি রক্ত শরীরে মেখে দেখছে তোমার ত্রুটি। পা দিয়ে দলে তোমার সব সমরাস্ত্র ; দেখায় রক্ত চক্ষু অঙ্গুলি ক্ষেপনাস্ত্র! সিরাজের হাত ধরে এসে দাঁড়ায়…

একই ছন্দে দুঃখ ও জীবন

-হাসান ওয়াহিদ উত্তাপ ছড়িয়ে পড়ছে বেশ কিছুদিন উপনিবেশের মতো গৃহস্তরা দম চেপে কখনো ঘরের ভিতরে কখনো সন্ধের উঠোনে বসে গ্রীষ্মের সজোর থাপ্পড় খায় --- যুদ্ধের মতো দুঃখ     তাদের তীব্র অহমিকা প্রতি পদক্ষেপে কেমন জীবন্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা। চোখে…

অবাক পৃথিবী

মানসুরা শরীফ পৃথিবী টা বলদে গেছে ঘুরে গেছে  একশত পয়তাল্লিশে অবাক ধরায় নির্বাক সব সময়ের সুরে বেসুরো তাল। অধুনিক হতে হতে, হাতের মুঠোয় শৈশব -কৈশোর, বার্ধক্য  বন্দী বৃদ্ধাশ্রমের ছয়*তিন ফুটের বিছানায় প্রযুক্তির…

কিংবদন্তির খোঁজ

মানসুরা শরীফ তাদের সাথে আমার দেখা হয়েছে কোন এক গোধুলি রাঙা সাঝঁ-বেলায় রক্তিম আবীর মাখা সূর্যের বিদায় আর একগুচ্ছ কামিনীর শুভ্রতায়। মেঠোপথের আইল ছুয়ে যাওয়া ধুলোমলিন ঘাষের ডগায় কিংবদন্তির পদচিহ্ন আঁকা সন্ধ্যা তারা ভরা আসমান, ঝলমলে…

মৃত্যুর মোহনীয় রূপ

মৃত্যু যে এত সুন্দর হতে পারে,তা আমি আগে দেখিনি। মৃত্যুর অনিন্দ্য সুন্দর রুপ দেখে আমি বিমোহিত হয়ে গেলাম। আম্বিয়া বেগমের বয়স ৯০ বছর। ছেলে মেয়ে নাতি নাতনী আত্মীয় স্বজনের অভাব নেই। সবচেয়ে হৃদয়কাড়া ব্যাপার হলো আম্বিয়া বেগমের জন্য সবার…