“ভুল মানুষ নির্বাচন” যেভাবে সবচেয়ে বড় ভুল

আবদুল্লাহ আরমান

নারীর রূপ ও পুরুষের সম্পদ বিয়ের ক্ষেত্রে অবশ্যই বিবেচ্য বিষয়। যে নারী জীবন সাথী হয়ে সারাজীবন পাশে থাকবে তার সুন্দর মুখের দিকে তাকিয়ে হৃদয়ে ভালোবাসার জোয়ার উঠুক পুরুষের এমন আকাঙ্খা মোটেই দোষনীয় নয়, কারণ এই আকাঙ্খার চাহিদা নিয়েই সে সৃষ্ট। এজন্যই ইসলাম পরনারীর প্রতি দৃষ্টিতে কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলেও বিবাহের পূর্বে কন্যাকে দেখা শুধু বৈধতাই দেয়নি বরং গুরুত্বারোপ করেছে!

পুতুল খেলার মধ্যে দিয়েই প্রত্যেক নারীর অবচেতন মনে সাজানো গোছানো সংসারের বীজ প্রোথিত হয়। মনের মাধুরি মিশিয়ে সে সংসার রাঙাতে চাইলেও অযাচিত অভাব সেই আশায় ছন্দপতন ঘটাক এটা সে কখনোই চায় না। যোগ্য স্বামীর গর্বিত স্ত্রী হয়ে স্বচ্ছল জীবনযাপনের যে স্বপ্ন নিয়ে সে বেড়ে ওঠে,তার এ আশাও দোষনীয় নয়। রাসূল সাঃ নিজেও দ্বীনদারিতার শর্তে স্বচ্ছল পুরুষকে বিবাহ করতে উৎসাহিত করেছেন। (বুখারীঃ৩৫৮৯)

কিন্তু “রূপ ও সম্পদ” যখন চরিত্র,ব্যক্তিত্ব,ধার্মিকতা,সততার উপর প্রাধান্য পায় তখন তা সামাজিক বিপর্যয়ের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। বর্তমান সময়ের ক্রমবর্ধমান ডিভোর্স,পরকীয়া,যৌতু্ক,পারিবারিক অশান্তি ও হত্যাকান্ড,শিশুদের সুস্থ মানসিক বিকাশে বাধা, বৃদ্ধাশ্রম বৃদ্ধি, পারিবারিক ও সামাজিক অনুশাসন ও সম্প্রীতি হ্রাস সেই বিপর্যয়ের এক একটি অশুভ বার্তা। পরিবার ও সমাজের সদস্য হিসেবে আমরা প্রত্যেকেই এর জীবন্ত সাক্ষী। পত্রিকার পাতায় পাতায় এই অশুভ বার্তাগুলো প্রতিনিয়ত আমাদের দৃষ্টিগোচর হলেও অপরাধগুলোর উত্তরোত্তর বৃদ্ধি সাক্ষ্য দেয় আমরা জেনে শুনে ভুল পথেই এগিয়ে যাচ্ছি!

শিক্ষা,চরিত্র, দ্বীনি চেতনা,পারিবারিক স্ট্যাটাস সব দিক থেকে উপযুক্ত হওয়া সত্বেও হালকা বা বেশী স্বাস্থ্য,গায়ের শ্যামলা রং, অমসৃণ নাক (!) ইত্যাদি হাস্যকর অযুহাতে পাত্রীকে অপছন্দ করা এবং সার্বিক দিক থেকে যোগ্য হওয়া সত্বেও ভালো চাকুরীজীবি না হওয়ার অপরাধে(?) সুপাত্র উপেক্ষা করে জীবনে কেউ সুখী হয়েছে এমন নজীর সাদা কাকের চেয়েও দুর্লভ!
পরিচিত এক কোটিপতির স্ত্রী আমার দেখা সবচেয়ে অসুখী ও নির্যাতিতা নারী এবং এলাকার সেরা সুন্দরীকে বিয়ে করে এক হতভাগার অগোছালো জীবনের চাক্ষুষ সাক্ষী আমি নিজে!

অপরদিকে শুধু দ্বীনদারীতা ও ব্যক্তিত্বকে প্রাধান্য দিয়ে সৃষ্টিগত ত্রুটিগুলো ভালোবাসার চাদরে ঢেকে সুখের সংসার করছে এমন উদাহরণের সংখ্যাও চোখে পড়ার মতো!

কোনো মানুষই ত্রুটিমুক্ত নয় কারণ স্বয়ংসম্পূর্ণতা স্রষ্টার বৈশিষ্ট্য সৃষ্টির নয়। আজব হলেও সত্য বিয়ের ক্ষেত্রে অপর পক্ষের হাজারো ত্রুটি আমাদের দৃষ্টিগোচর হলেও নিজের ত্রুটিগুলো যেন অজানাই রয়ে যায়। বুদ্ধিমান পুরুষ তো সেই,যে সংসারকে একজন গুণবতী সদস্য উপহার দেয় যে একাধারে প্রেমময়ী অর্ধাঙ্গিনী,অনাগত সন্তানের যোগ্য মা,মা-বাবার প্রিয় পুত্রবধূ এবং দক্ষ হোম ম্যানেজার। বুদ্ধিমান অভিভাবক তো সেই যে তার আদরের কন্যাকে তার হাতেই সমর্পণ করবে যে তাঁর কন্যার ভালোবাসার উপযুক্ত হবে,হবে সন্তানের আদর্শ পিতা,আদরের মেয়েটি শত বিপদেও যার বুকে নিরাপদ আশ্রয় পাবে,যে তার কন্যার হাত ধরে তাকে জান্নাতের পথ দেখাবে..!

জীবনে “ভুল মানুষ নির্বাচন” সবচেয়ে বড় ভুল,যে ভুলের রেশ কবর পর্যন্ত থাকবে। কারণ বিয়ে শুধু ‘বিয়ে’ নয় এটা দু’জীবনে চলার স্পষ্ট পথ ও পরিণতি স্বেচ্ছায় বেছে নেয়া! সুতরাং সিন্ধান্ত আপনার…..!

লেখকঃ কলাম লেখক

আরও পড়ুন