যদি আপনি সুখী হতে চান

তারিক হক

আমি গিয়েছিলাম Rehab Clinic এ মেরুদন্ডে অপারেশন হয়েছিল।অপারেশনর পর জার্মানীতে Rehab Clinic এ পাঠায়। আমার যে ফিজিও থেরাপিষ্ট, একদম ইয়ং ছেলে সারাক্ষণই হাসছে, নানা ধরনের জোক্ করছে।

আমি তাকে প্রথমে একদমই পছন্দ করিনি। আমার প্রচন্ড ব্যথা আর এ লোক সারাক্ষনই হাসছে আর অদ্ভুত সব গল্প করছে।

হঠাৎ দেখলাম, সে আমার কার্ডটি চোখের ৫০ সেন্টিমিটার দূর হতে পড়ছে। আমি ধারণা করলাম, কি ব্যাপার এ অন্ধ নাকি? বললাম, আমার নামটি কি কঠিন?

উত্তর এলো, না আমি ৮০% অন্ধ। আমার জন্ম থেকেই।

আমি অবাক হয়ে গেলাম। আমার পিঠে ব্যথা, তাই আমার কাছে জীবন দুর্বিষহ মনে হয়েছিল, আর এ তো জন্ম থেকেই প্রায় অন্ধ অথচ অনবরত জোক্ করছে আর হাসছে।

পাঠক, আপনি আমাকে বলুন, সুখ কোথায়, আমাদের মনের মধ্যে সুখ লুকিয়ে আছে আর আমরা সুখ খুঁজে বেড়াই।

পাঠক, আমি কতকগুলি নিয়ম লিখছি, যেটা আমি সারাজীবনে শিখেছি, আপনি যদি অনুসরণ করেন, আমি জানি আপনি নিশ্চয়ই সুখী হবেন।

১. এই মুহুর্তটি উপভোগ করুন: যা হয়ে গেছে, তাতো হয়েছেই যা হবে আপনি জানেন না, তাহলে এই মুহুর্তে আপনি হাসবেন না কেন?

২. নিজের মত থাকুন: চেষ্টা করবেন না অন্য কেউ হতে, অন্যের মত অভিনয় করতে, অন্যের মত লিখতে, অন্যের মত চুলের বা শাড়ীর ফ্যাশন করতে। আপনি আপনিই, আপনার মতো অনন্য লোক পৃথিবীতে নেই।

৩. নিজের সুখকে প্রাধান্য দেবেন: আপনি হয়তো বলবেন, আমি কি স্বার্থপর হবো? না, তা নয়। আপনি নিশ্চয়ই অন্যকে সাহায্য করবেন।

তবে নিজের সুখকে বিলিয়ে নয়, আপনি যদি নিজে সুখী হোন, অন্যরাও আপনার সাহায্য পেয়ে খুশী হবে।

৪. আপনার যা আছে, তাতে সুখী থাকুন: আমরা সবাই মনে করি যদি আমার একটি বড় বাড়ি থাকতো, বড় গাড়ি থাকতো আর যদি বস্ হতে পারতাম কি মজাই না হোত!!!

অনেকদিন পরে যখন আপনার বড় বাড়ি হবে, বড় গাড়ি হবে, আপনি যখন অফিসের বড় কর্মকতা হবেন, মনে হবে কেন আমার Porsche বা Rolls Royce নেই?

তার মানে কি?

আপনার আকাঙ্খা আরও বেড়ে গেছে তাই সুখী হোন, এই মুহুর্তে আপনার যা আছে, সেটা নিয়ে।

সকালে ঘুম থেকে উঠে কৃতজ্ঞ হোন খোদার কাছে, যা আপনার আছে, সেটা নিয়ে।

অনেক পুরনো গল্প, তবুও যত বার পড়ি, ততই ভালো লাগে। রাজা গনককে জিজ্ঞাসা করলেন, কোথায় সুখ পাওয়া যাবে? গনক বললো, সুখী লোকের জামা গায়ে দিলে আপনি সুখী হবেন। রাজা খুঁজতে বেরুলেন, যাকে পান, তাকেই জিজ্ঞাসা করেন, তুমি কি সুখী? উত্তর আসে না’।

হঠাৎ একদিন গ্রামে গিয়ে রাজা দেখলেন একটি চাষী উদোম হয়ে গান গাইছে, মুখে তার দিব্যি হাসি।

রাজা জিজ্ঞেস করলেন, তুমি কি সুখী?

হ্যাঁ, হ্যাঁ, আমি সুখী। দাও, দাও তোমার জামা আমাকে দাও।

চাষী বললো, রাজামশাই, আমি এত গরীব যে আমার কোন জামা নেই।

আমি “Self-Hypnosis” ট্রেনিংয়ে অংশগ্রহণ করেছি। আপনি দু’চোখ বন্ধ করুন, বলুন “আমার মনে কোন দুশ্চিন্তা নেই, আমি একদম শান্ত।

আস্তে আস্তে চিন্তা করুন, আপনার মনে কোন দুঃখ নেই, আপনি তাকিয়ে আছেন শুধু সামনের দিকে, যা পেছনে ছিলো, পিছনেই আছে। দেখবেন প্রশান্তিতে আপনার মন ভরে উঠেছে।

সুখ আপনার মন দিয়ে গড়া। আপনি হয়তো বলবেন, আমার অনেক যন্ত্রণা। আমি এটা মানি। তবুও একবার চেষ্টা করুন না, জীবনটিকে অন্য চোখ দিয়ে দেখতে।

সুখকে খুঁজবেন না, নিজেকে এভাবে তৈরি করুন, যাতে সুখ আপনাকে খুঁজে বেড়ায়।

আবারও বলছি, প্রতিদিন জীবনকে উপভোগ করুন, তাতেই হবেন আপনি সুখী।

লেখকঃ  মোটিভেশনাল লেখক ও প্রবাসী বাংলাদেশী, জার্মান

 

আরও পড়ুন