বিশেষ শিশুদের সেবায় মুন্সীগঞ্জে শুভ্র প্রকাশের শুভ উদ্বোধন

 মুন্সীগঞ্জ থেকে

শুভ্র প্রকাশ ব্যক্তি উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত একটি বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান । গ্রামের যে শিশুগুলো এখনো ঘরবন্দী,বাবা মায়েরা এখনো যাদের সমাজে বের করতে লজ্জা পান অথবা বিরক্তিতে কখনো কখনো বিশেষ শিশুদের উপর চড়াও হন এসব কিছু মাথায় রেখে সেবা দানের মানসিকতা নিয়ে প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু হলো গতকাল ।

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার ভাগ্যকুল ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান কাজী মনোয়ার হোসেন শাহাদাতের স্ত্রী সুরাইয়া মনোয়ার এই স্কুলটি প্রতিষ্ঠা করেছেন। শুভ্র নামের তার একটা শারীরিক প্রতিবন্ধী শিশু আছে। শুভ্রের নামের সাথে মিল রেখেই স্কুলটার নাম রাখা হয়েছে শুভ্র প্রকাশ।
গতকাল সম্মানিত ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে শুভ্র প্রকাশের শুভ সূচনায় সারাদিন নানা রঙ্গে সেজেছিল প্রতিষ্ঠানটি । দেখার মত ছিল বিশেষ শিশুদের হাসিমাখা মুখগুলো ।স্কুলের ভিতরে শিশুদের জন্য খেলাধুলার ব্যবস্থাও রয়েছে। সেখানে দিনভর শিশুরা খেলাধুলা করে ।

 শুভ্র প্রকাশের শুভ্রর সাথে সালমা তালুকদার ও সুরাইয়া মনোয়ার

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদার এবং বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসাম্মাৎ রহিমা আক্তার, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক ডাঃ বদিউজ্জামান ভুঁইয়া ডাবলু, মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, শ্রীনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মসিউর রহমান মামুন । অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শুভ প্রকাশ প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা সুরাইয়া মনোয়ার এবং তত্ত্বাবধায়ন করেন ভাগ্যকুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী মনোয়ার হোসেন শাহাদাত

শুভ্র প্রকাশের এডভাইজার ও টিচার ট্রেইনার হিসেবে আছেন স্পেশাল এডুকেটর এবং কলাম লেখক সালমা তালুকদার । স্কুলের সার্বিক দিক নিয়ে তিনি প্রিন্সিপালকে পরামর্শ দেন । সালমা তালুকদার মহীয়সীকে বলেন-

“শুভ্র প্রকাশের প্রতিষ্ঠাতা সুরাইয়া মনোয়ার আপা ও লিজা তালুকদার আপুর আহবানে আমার যাতায়াত প্রতিষ্ঠানটিতে । স্পেশাল শিশুদের নিয়ে যেটুকু ক্ষুদ্র জ্ঞান অর্জন করেছি তাই নিয়ে সর্বাত্মক সহযোগীতার মনোভাব নিয়ে শুভ্র প্রকাশের সাথে আছি, থাকবো ইনশাআল্লাহ । আপনারাও যারা প্রতিষ্ঠানটির আশেপাশে অবস্থান করছেন এবং যারা দূরে আছেন তাদের আন্তরিক ভালোবাসা ও দোয়া একান্তভাবে কাম্য । এভাবেই আমাদের এই বিশেষ শিশুগুলো ঘরের বাইরে পা রাখুক এবং নিজের সুপ্ত প্রতিভা বিকশিত করে সমাজকে আলোকিত করুক….।”

আরও পড়ুন