মহীয়সীর কলাম

আমরা গর্বিত,আমরা আনন্দিত
                       -নুরে আলম মুকতা
কোভিড-১৯ একটি ভাইরাস। অকোষীয় জীব। যার প্রাণ এসিডের মধ্যে সীমিত। আরএনএ আর ডিএনএ বায়োলজির শব্দ যা আমাদের জীবনের সাথে যুক্ত। সৃষ্টির সেরা জীব মানব দেহে এমন করে এটি সুসজ্জিত করেছেন সৃষ্টিকর্তা তা পৃথিবী সমূলে ধ্বংস না হওয়া অবধি এগুলো ধ্বংস হবে না। পরে কি হবে তা সৃষ্টিকর্তাই জানেন। এখানে মানুষের কোন হাত নেই। আমরা প্রচুর গবেষনা করে রোগ বালাই থেকে বেঁচে থাকতে পারি। কিন্তু মৃত্যু ঠেকাতে পারি না। কেউ পারবেও না। তাই বলে কি আমরা ইচ্ছে করে তড়িতাহত হই ? না কেউ হয় না। আমরা জানি মৃত্যু অবধারিত তাই তড়িৎ থেকে দুরে থাকি। আমাদের বাংলাদেশের বিজ্ঞানীদের সফল জয়গাঁথা আজ বিশ্বের দরবারে উপস্থিত। কোভিড-১৯ এর প্রতিষেধক গ্লোব বায়োটেক আবিস্কার করার ঘোষনা দিয়েছিলো বেশ আগে। তখন বিশ্বের বাঘা বাঘা প্রতিষ্ঠান আর উন্নত বিশ্ব হিমশিম খেয়ে চলেছিলো। ভাইরাসটির একটি বিশেষত্ব হলো বার বার জিনোম পরিবর্তন করা। এটি সহজ ভাষায় বললে এরকম দাঁড়ায় যে, যেখানে বা যে দেশে যেমন জলবায়ু তেমন করে বেঁচে থেকে এটি মানুষকে আক্রমন করে। এটি ভাইরাসের অন্যতম বৈশিষ্ট্য। আমাদের নাতিশীতোষ্ণ দেশে এটিবার বার পরিবর্তিত হয়েছে। আক্রমণ চালিয়েছে নিজেকে পরিবর্তন করে। তাই এর প্রতিষেধক বানানো এক জটিল কাজ। বিশ্ব মানের ল্যাবরেটরি,যন্ত্র-পাতি আর মেধা না থাকলে এটির ধারে কাছে যাওয়া সম্ভব না। আশার কথা আমাদের বিশ্বমানের ল্যাবরেটরি আর মেধা আছে। আমরা এখন জীবন রক্ষাকারী ঔষধ উন্নত বিশ্বে রপ্তানী করি। গ্লোব বায়োটেকের অসীম সম্ভাবনাময় একদল বিজ্ঞানী ভাইরাসটির প্রতিষেধকের বেশ কিছু ট্রায়াল সম্পন্ন করেছেন সফলতার সাথে। WHO সহ এর সাথে যুক্ত সংস্থাগুলো গ্লোবের গবেষনা পর্যবেক্ষণ করছেন। আমরা খুবই খুশি উন্নত বিশ্বের সাথে আমরা তাল মিলিয়ে চলতে পেরেছি। গত ২২ তারিখ আমাদের দেশে নিযুক্ত নেপালের

 রাস্ট্রদূত বংশীধর মিশ্র গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালসের তেজগাঁও এর কারখানা পরিদর্শন করে তাঁর দেশে কোভিড-১৯ প্রতিষেধক “ব্যানকোভিড” এর ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের বিষয়ে আগ্রহ পোষন করেছেন। বংশীধর মিশ্র একজন চিকিৎসক। আমাদের এর চাইতে আনন্দের আর কি হতে পারে! চোখে অশ্রু আসে আনন্দে যে আমরা বাংলাদেশের নাম গর্ব ভরে বিশ্বময় ছড়িয়ে দিতে পেরেছি। গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালসের সকল বিজ্ঞানীদের জানাই আমরা প্রানঢালা অভিনন্দন। আমরা অনুরোধ করবো এ প্রতিষেধক সফল হলে আমাদের লক্ষ লক্ষ প্রাণপ্রিয় শিক্ষার্থীদের দান করে তাদের প্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফেরার সুযোগ করে দেয়া হোক।
নুরে আলম মুকতা,কবি,সাহিত্যিক ও সহ-সম্পাদক ,মহীয়সী
আরও পড়ুন