বুক রিভিউঃ ঈমান ভঙ্গের কারণ

মোঃ  কামরুজ্জামান জেমসঃ

ফিলিস্তিনের এক ছোট্ট বালক মাথার উপর ইসরাইলের বিমান দেখে ভয় লাগে কিনা জিজ্ঞেস করা হলে সে জবাব দিয়েছিল,” আমাদের মাথার উপর তাদের বিমান উড়ে কিন্তু তারা জানেনা তাদের উপরেও আমাদের আল্লাহ আছেন।”

তার সেই ইমানদীপ্ত কথা আমাদেরকে বিমোহিত করে কিন্তু এই ঈমান বিভিন্ন কারণে ভেঙ্গে যেতে পারে যেমন অজু ভেঙ্গে যায়।

“ঈমান ভঙ্গের কারণ” বইটিতে ঠিক কি কি কারণে মানুষের ঈমান ভেঙ্গে যায় তার বিশদ বিবরণ দেওয়া হয়েছে। এখানে মূলত দশটি কারণ উল্লেখ করা হয়েছে কারণ গুলো নিয়ে বিশেষত আলোচনা করা হয়েছে।

প্রধানত দশটি কারণ এর মধ্যে
১. আল্লাহর সাথে শিরক।  আল্লাহর সাথে শিরক আবার দুই ভাগে বিভক্ত-বড় শিরক ও ছোট শিরক। তওবা করা ছাড়া বড় শিরক আল্লাহ ক্ষমা করেন না অর্থাত  বড় শিরক করলে তওবা করতেই হবে। বড় শিরক আবার কয়েক কয়েক প্রকার।
ক.  আল্লাহকে আহ্বান করার ক্ষেত্রে শিরক করা ।  যখন ইবাদতে শিরক ঢুকে যায় তখন তা নষ্ট হয়ে যায়।
খ. ইচ্ছা সংকল্প ও নিয়তের মধ্যে শিরক করা।  রিয়া বা লোক দেখানো এই শিরকের অন্তর্ভুক্ত।
গ. আনুগত্যে শিরক করা।  আল্লাহর অবাধ্য করে বরং কথিত পীর বুজুর্গ শাইখ ধর্মীয় পণ্ডিতদের আনুগত্য করা শিরকের অন্তর্ভুক্ত।  হালালকে হারাম ও হারামকে হালাল বলে বিশ্বাস করা অর্থাৎ আকিদাগত শিরক এই শিরকের  অন্তর্ভুক্ত।
ঘ. ভালোবাসার মাঝে শিরক করা। আল্লাহকে ভালোবাসা, তাকে মহাব্বত করা, আল্লাহর আযাব থেকে মুক্তি, সফলতা অর্জনে শুধুমাত্র তাকে ভালবাসা, আল্লাহকে ভালোবাসার পাশাপাশি আল্লাহ ভালবাসেন সেগুলোকেও ভালোবাসা, মহব্বত করা, আল্লাহর জন্যই ভালোবাসা অর্থাৎ আল্লাহর সন্তুষ্টির কারণে অন্য কাউকে ভালোবাসা।
ঙ. গায়রুল্লাহর নামে পশু জবাই করা। আল্লাহ ভিন্ন অন্য কারো নামে পশু জবাই করা বড় শিরক।
চ.  গায়রুল্লাহর নামে মানত করা। একটি বড় শিরক হল আল্লাহ ভিন্ন অন্য কারো কাছে আশ্রয় চাওয়া সাহায্য প্রার্থনা করা এবং তার নামে মানত করা এবং তা পূরণ করা।
ছ. গায়রুল্লাহর নামে শপথ করা আল্লাহ ভিন্ন অন্য কোনো ব্যক্তি বা বস্তুর নামে কসম করা দেখানো ইবাদত এবং মাখলুকের জন্য আমল করা এটি হচ্ছে এর অন্তর্ভুক্ত।
২.  বান্দা ও আল্লাহর মাঝে অন্য কাউকে মাধ্যম বানানো
৩. মুশরিকদের কাফের মনে না করা তাদের কুফরীর ব্যাপারে সন্দেহ করা কিংবা তাদের ধর্মকে সঠিক মনে করা
৪. রাসূল সাল্লাল্লাহু সাল্লাম এর আনীত দিন ব্যতীত অন্য কোন জীবন ব্যবস্থা কিংবা আইন কে উত্তম মনে করা
৫. দ্বীন ইসলামের কোন বিষয় বিদ্বেষ পোষণ করা
৬.  দ্বীনের কোন বিষয় নিয়ে ঠাট্টা মশকরা করা
৭. কিছু অর্জন কিংবা বর্জনের জন্য (ব্ল্যাক ম্যাজিক)  যাদূর উপর সন্তুষ্ট থাকা,  মনে প্রাণে যাদুকে পছন্দ করা
৮.  মুসলিমদের বিরুদ্ধে মুশরিকদের সাহায্য সহযোগিতা করা
৯. কাউকে শরীয়তে মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর ঊর্ধ্বে বলে মনে করা
১০. আল্লাহর মনোনীত দ্বীন ইসলাম থেকে মুখ ফিরিয়ে নেওয়া।

ঈমান ভঙ্গের কারণ কয়টি লিখিত হয়েছে এবং এর পেছনের কারণগুলো যদি আমাদের মধ্যে থেকে বের করে আনা সম্ভব হয় তাহলে এর থেকে আমরা পরিত্রান পাবো। ঈমান ভঙ্গের কারণ যদি আমরা না ঘটায় তাহলে আমাদের ঈমান ঠিক থাকবে আর এর বর্ণনা ঈমান ভঙ্গের কারণ বইটি লেখা হয়েছে।

পাঠপ্রতিক্রিয়ার আকার বেশি বড়ো হবে বলে বাদ বাকি গুলোর বর্ণনা দেওয়া হয়নি। আশাকরি সবাই বইটি কিনে এটি পড়বেন এবং আমল করার চেষ্টা করবেন তাহলে আশা করা যায় ঈমান নিয়ে পৃথিবী থেকে বিদায় নিতে পারবেন বলে আশা করা যায়।

লেখককে সৌদি সরকার অন্যায়ভাবে বন্দি করে রেখেছেন বলে বই থেকে জানতে পারি। সবাই তার ও মুসলিম মিল্লাতের জন্য দোয়া কামনা করবেন। আল্লাহ সবাইকে হেফাজত করুন।

বইয়ের নামঃ ঈমান ভঙ্গের কারণ
লেখক-শাইখ সুলায়মান ইবনু নাসির আল উলওয়ান
প্রকাশনী- সীরাত পাবলিকেশন              
প্রথম প্রকাশ – নভেম্বর,  ২০১৮
প্রকাশক-  সীরাত পাবলিকেশন
প্রচ্ছদ-আবুল ফাতাহ
মূল্য-১৬৭.০০ টাকা
পৃষ্টা-১১১

আরও পড়ুন