বুক রিভিউঃ কাশ্মীর ইতিহাস ও রাজনীতি

কাশ্মীরকে বলা হয় পৃথিবীর ভূস্বর্গ ৷ পৃথিবার ভূস্বর্গকে নিয়ে লিখেছেন অনেকেই। নানান ধাঁচের সে লেখা, তবে অন্য সবার থেকে  আলাদা মনে হয়েছে জাকারিয়া পলাশ লিখিত কাশ্মীর ইতিহাস ও রাজনীতি বইটাকে৷ কেননা বইয়ের লেখক নিজে দুইবছর কাশ্মীরে ছিলেন, কাশ্মীর বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন।  লেখকের ভাষ্য অনুযায়ী তিনি কাশ্মীরকে দেখেছেন ‘সবকটি ইন্দ্রিয়ের সাহায্যে’।

লেখকের বর্ণনায় বইটিতে স্থান পেয়েছে ঐতিহাসিক কাশ্মীরের ভাষা, ধর্ম, অর্থনীতি, সামাজিক-সাংস্কৃতিক দৃষ্টিকোণ, তাদের স্বায়ত্তশাসন থেকে স্বাধীনতা এবং সংঘাতময় রাজনীতির ক্রমবিবর্তন ৷

লেখক মনে করেন কাশ্মীর নিয়ে আগ্রহ দেখায় তাদের দুটি দল রয়েছে। প্রথম দলে রয়েছেন সৌন্দর্যপিপাসুরা এবং অন্যদলে আছেন যারা কাশ্মীরকে জানতে চায় তারা।

বর্তমানে ভারত শাসিত কাশ্মীরকে বলা হয় জম্মু এন্ড কাশ্মীর, পাকিস্তান শাসিত কাশ্মীরকে বলা হয় আজাদ কাশ্মীর এবং চীনের হাতে থাকা অংশকে বলা হয় আকসাই চীন। বৃহৎ এই এলাকার মূলদ্বন্দ্ব মূলতঃ ভারত শাসিত জম্মু ও কাশ্মীর এবং পাকিস্তান শাসিত আজাদ কাশ্মীর নিয়ে। উভয় কাশ্মীরই বিশ্ব গণমাধ্যমে আলোচনায় আসে এ অঞ্চলে বসবাসরত জনগোষ্ঠীর রক্তরাঙা শিরোনামের অংশ হয়ে ৷

অষ্টম শতাব্দি হতে এখানে ইসলামের আগমন হলেও ইসলামের ব্যাপক বিস্তার ঘটে চতুর্দশ শতকে। মোগলদের হাতে কাশ্মীরের পদানত হওয়াকে কাশ্মীরিরা যেমন ভালো চোখে দেখেনি, তেমনি দেখেনি রণজিৎ সিং যখন তার অধীনস্ত ডোগরা পরিবারের গুলাব সিংকে কাশ্মীর দান করে তখন। গুলাব সিং পুর্ব প্রতিশ্রুতি মোতাবেক রণজিৎ সিংকে ইংরেজ আগ্রাসনের বিরুদ্ধে সহায়তা করার কথা থাকলেও পরে তা করেননি। যার ফলাফল হিসেবে রণজিৎ সিং পরাজিত হয় আর ইংরেজরা মাত্র ৭৫ লাখ টাকায় ১৮৪৬ সালে ‘অমৃতসর চুক্তির’ মাধ্যমে কাশ্মীরকে বিক্রি করেন ডোগরা পরিবারের গুলাব সিংয়ের কাছে।

বিক্রিত জাতি হিসেবে কাশ্মিরী জাতিগোষ্ঠীর বিভাজন প্রক্রিয়া আরও জটিলতর হয়েছে দেশ বিভাগ পরবর্তী সময়ে ৷ পরবর্তী সময়ে মোগল আগ্রাসন থেকে শিখ, আবার শিখদের হাত থেকে গুলাব সিং এটাই ছিলো কাশ্মীরিদের পরাধীনতার শৃঙ্খলের দুষ্ট চক্র । দেশ বিভাগের প্রাক্কালে প্রিন্সলি ষ্টেটগুলো শর্তসাপেক্ষে বিভিন্ন রাজ্যে যোগদান করে ৷

সেসময় তৎকালীন কাশ্মিরের মহারাজা হরিসিং নিজে পুরোপুরি স্বাধীন থাকার ফন্দি নিয়ে এগুতে থাকেন এবং ঘটনা পরম্পরায় পাকিস্তানের জিন্নাহকে নিরাশ করে নেহেরুর ভারতীয় ডোমিনিয়নে যোগদান করে৷ সেই থেকে এই উপত্যকায় বসবাসরত সংঘাতের সূচনা যা সাম্প্রতিক সময়ে আরও তীব্রতর হয়ে উঠেছে ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করার কারনে৷ এছাড়া বইটির ২২টি অধ্যায়ে বিস্তীর্ণ বর্ণনায় স্থান পেয়েছে কাশ্মীরের কনজিউমার ইকোনমি, ঐতিহ্যবাহী কাশ্মিরী শাল, ভুস্বর্গ কাশ্মিরের আপেল, আঙ্গুর ও আখরোটসহ ভূ-রাজনীতির আদ্যোপান্ত৷

এককথায়, কাশ্মিরকে জানার জন্য জাকারিয়া পলাশ রচিত ‘কাশ্মীর ইতিহাস ও রাজনীতি ‘ একটি অনবদ্য বই। যার মাধ্যমে এই অঞ্চলে অনাদিকাল ধরে ঘটে যাওয়া এক নিপীড়িত জাতিগোষ্ঠীর ইতিহাস ও তাদের জীবন জীবিকার বাস্তবতা জানা যাবে ৷ সব মিলিয়ে কাশ্মিরকে জানার ও বোঝার জন্য একটি উপভোগ্য বই ‘কাশ্মীর ইতিহাস ও রাজনীতি’ ।

বইয়ের নাম: কাশ্মীর ইতিহাস ও রাজনীতি
লেখক : জাকারিয়া পলাশ
প্রকাশনী: সূচীপত্র
প্রচ্ছদ মূল্য: ৪০০ টাকা মাত্র

জুয়েল মল্লিক, বগুড়া ৷

আরও পড়ুন