বুক রিভিউঃ দ্বৈরথ

আরজু নাসরিন পনিঃ

লেখক ও লেখা সম্পর্কে: 

লেখক হুমায়ূন আহমেদ সম্পর্কে নতুন করে কিছু বলার না থাকলেও তাঁর সহজ, আমুদে লেখাগুলোর ফাঁকে ফোকরে তিনি খুব দরকারী কিছু কথা বলে দেন। পাঠ মুগ্ধতায় সার্বিকভাবে আমরা সেগুলোকে খুব উজ্জ্বলভাবে দেখতে পাই না। যেমন এই বইয়ের কামালের চারিত্রিক বাজে ব্যাপারের সাথে গল্পের নায়িকা সোমার অবচেতন মনে মানিয়ে নেয়া বা প্রফেসরের সাথে সম্পর্কটাই পাঠক দেখে। কিন্তু দেখে না কৌশলে পাঠককে বই পড়ার কথা বলা হয়েছে। ব্যক্তিগত লাইব্রেরি ব্যবহারে বই ধার নেবার নিয়মের কথা বলা হয়েছে। পাঠক হৃদয়কে কৌতুহলী করে তুলেছে
সুবোধ ঘোষের ‘শোন বরনারী’ বইটা সম্পর্কে।

ভালো লেগেছে যেসব কথা:

👉অবিশ্বাসী লোক যখন কাউকে বিশ্বাস করে তখন পুরোপুরি করে।

👉বই যে মানুষের কতো ভালো বন্ধু এটা বই পড়ার অভ্যাস না হলে বুঝতে পারবে না।

শেষকথা:

লেখক স্বভাবজাত হিসেবে আমুদে উপস্থাপনে দক্ষ। হয়তো এই ‘আমুদে’ ব্যাপারটাকেই এলিট ক্লাসের পাঠক পছন্দ করেন না। ভাব গম্ভীর লেখাই হয়তো তাদের কাছে প্রকৃত সাহিত্য। কিন্তু আমরা সাধারণ মানুষ যা দেখতে পাই না তাই লেখক হুমায়ূন আহমেদ খুব নিবিড়ভাবে দেখে তা পাঠকের কাছে তুলে ধরেছেন। তাই পাঠক হৃদয়ে তার স্থান অনেক উঁচুতে।

বই: দ্বৈরথ
লেখক: হুমায়ূন আহমেদ
প্রকাশক: কাকলী প্রকাশনী
দ্বিতীয় প্রকাশ: অক্টোবর ১৯৮৯
মূল্য: ৪০ টাকা
পৃষ্ঠা: ৯২

রিভিউ লেখকঃ সাহিত্যিক ও অধক্ষ মর্ডাণ টিচার্স ট্রেনিং কলেজ।

আরও পড়ুন