বুক রিভিউঃ শিকড়ের সন্ধানে

আবদুল্লাহ আরমান

ছোটবেলায় কখনো বকুল ফুল কুড়িয়েছেন? খুব ভোরে বকুল তলার আশপাশ দারুণ একটা ঘ্রাণে মুখরিত থাকে! গাছতলায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ফুলগুলো হাতে জমা করে ঘ্রাণ নিলে ঘ্রাণটা আরও গাঢ় মনে হয়! অনেকে ঘ্রাণটা আরও বেশিদিন নাকের ডগায় রাখতে ফুলগুলো একমুখী করে সাজিয়ে খুব যত্ন করে মালা গেঁথে পড়ার টেবিলের সামনে ঝুলিয়ে রাখে! বলতে পারেন এটা আগের দিনে পড়ার ঘরে মিনি এয়ার ফ্রেশনার! এই কাজে মেয়েরা স্বভাবগত ভাবে একটু বেশীই পটু!

বলছিলাম “শিকড়ের সন্ধানে” বইটার কথা! বইটা এককথায় কোরআনের ঐতিহাসিক রিভিউ! কোরআনের বিভিন্ন স্থানে বর্ণিত বিচ্ছিন্ন গল্পগুলোকে বকুল ফুলের মতো এক সুতোয় গেঁথে আমাদের একটি দারুণ মালা উপহার দিয়েছেন লেখিকা হামিদা মুবাশ্বেরা!

কোরআন কোনো গল্পের বই নয়। তাই এখানে বর্নিত ইতিহাস ও গল্পগুলো শিক্ষা/সতর্ক /সুসংবাদ ইত্যাদির জন্য অবস্থার প্রেক্ষাপটে যেখানে যতটুকু প্রয়োজন বিচ্ছিন্নভাবে তা উল্লেখ করা হয়েছে। তাই সাধারণ পাঠকের জন্য গল্পগুলোর যোগসূত্র আবিষ্কার করা কঠিন বটে!

ইবরাহীম আঃ থেকে শুরু করে মুহাম্মাদ সাঃ পর্যন্ত এই বংশধারায় যত নবী এসেছেন তাদের নিয়েই মূলত এই বই। ইবরাহীম আঃ ছিলেন শামবাসী কিন্তু তাঁর বংশধররা কিভাবে মক্কা-মিশর-জেরুজালেমে পৌঁছুলেন তার ঐতিহাসিক যোগসূত্রগুলো লেখিকা মালার মতোই একমুখী ও পর্যায়ক্রমে সাজিয়েছেন! শুধু কি তাই, হাজার বছর আগের ইতিহাস বর্তমান মুসলিমদের সাথে কতোটা প্রাসঙ্গিক তা এই বইয়ে খুব সুন্দরভাবে তুলে ধরা হয়েছে! কোরআনের ইতিহাসের আয়নায় আজকের মুসলিমরা নিজেদের মুখ দেখলে একদিকে যেমন বনি ইজরায়েলের মতো নিজেদের লজ্জাজনক অবস্থা জানতে পারবে তেমনি পাবে মুক্তির পথনির্দেশনা!
ইহুদি, খ্রিস্টান ও মুসলিমদের শিকড় একই মাটিতে প্রোথিত হলেও কেন তারা আজ অভিশপ্ত ও পথভ্রষ্ট, কেনইবা ইহুদিদের ইসরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার ঐতিহাসিক দাবী অসার ও অযৌক্তিক তা প্রমাণ করা হয়েছে এ বইয়ে।

সহজ করে বলা যায়,কোরআনের গল্পগুলো যে নিছক কোনো গল্প নয় পাঠক তা অনুধাবন করতে সক্ষম হবেই হবে!

কোরআনের শিক্ষক, ছাত্র, সাধারণ পাঠক, গবেষক সকলের জন্যই বইটি জরুরী মনে করি। এমনকি ইসলামকে শিকড় থেকে জানতে আগ্রহী অমুসলিমদের জন্যও “শিকড়ের সন্ধানে ” অসাধারণ একটি বই হবে বলে আমার বিশ্বাস।!

বইঃ শিকড়ের সন্ধানে

লেখকঃ হামিদা মুবাশ্বেরা

প্রকাশনীঃ সমকালীন প্রকাশন

 

আরও পড়ুন