অনন্ত যাত্রার স্তুতি

তাসনীম মাহমুদ

বই, পাখি, ফুলের সৌন্দর্য-ঘ্রাণের পেছনে
মানুষের ভিড়ে; মানুষের মনের গানের মত
অস্ফুট-অদেখা বক্তব্যের হৃদপিণ্ডে হাত রেখে দেখি,
পৃথিবীর সমস্ত ঘুঁটে কোর্ট-কাচারির পাড়ায় পাড়ায়।
লুসাই কন্যা কর্নফুলির বেদনাক্রান্ত হৃদে হাঁটতে হাঁটতে
পৌঁছে যেয়ে হাসপাতালের বারান্দাগুলোয় শুকি
মরফিনের ঝাঁঝাল গন্ধ। সেখানে কেবলই দুঃখ!—
আদম আর হাওয়ার (আঃ) আজন্ম আহাজারি।
মনে হল, বরফে জ্বলে ওঠা আগুনের মত বিভৎস
হা-উতাশ, লেলিহান এখানে মিলেমিশে একাকার।

বাহলুল পাগলের নসিহত শুনে এরপর একদিন
পাড়ার গোরস্থানে যেয়ে দেখি—
ধনীর লাশ, গরীবের লাশ, মধ্যবিত্ত-বেওয়ারিশের লাশ
কবরে শুইয়ে দেয়া হচ্ছে ভেদাভেদহীন কাফনে।
কান্নার অশ্রু;
সকল স্বজনের চোখ বেয়ে একই শিশিরের মত
জ্বলজ্বল করে গড়িয়ে পড়ছে ঘাসে। বুঝে নিলাম,
পৃথিবীর সমাপ্তি— আর দুঃখ-কষ্ট-আনন্দ-বেদনার ঊর্ধ্বে
যা কিছু সমস্ত হিসাব-নিকাশ;
তার অনন্তর সমুদ্রযাত্রা কেবল এখান থেকে শুরু…।

তাসনীম মাহমুদ – কবি।

আরও পড়ুন