ঋন গ্রস্ত

 

আমরা সবাই ঋণগ্রস্ত
আমাদের বাবা মায়ের কাছে,
সারাজীবন ধরে এই ঋণ
শোধ করলেও সব চেষ্টাই যাবে মিছে।
সেই গর্ভস্থ অবস্থা থেকেই
সন্তানদের নিয়ে তাঁদের স্বপ্ন দেখা শুরু,
তাঁরাই তো আমাদের পিতা মাতা
আমাদের জীবনের প্রথম শিক্ষাগুরু।
সেই হাঁটতে শেখা থেকে শুরু করে
কথা বলা শেখা, পড়াশোনা শেখা, সবেতেই তোমাদের অবদান,
কি করে ভুলবো বলো তোমাদের শেখানো
প্রথম দেশের জাতীয় গান।
যতই চেষ্টা করি ঋণ মেটানোর
সবই যাবে বৃথা,
আশীর্বাদ করো-রাখতে পারি যেন
তোমাদের দেওয়া সকল কথা।
সারাজীবন ধরে ঋণগ্রস্তই থাকতে চাই
শুধু তোমাদের চরণে একটু ঠাঁই দিও,
আমরা তো তোমাদের ঋণমেটাতে অক্ষম
শুধু আমাদের অনেক শ্রদ্ধা ও ভালবাসা নিও।

 

শ্রাবনী আচার্য্য- কবি 

আরও পড়ুন