দিনরাত্রির ভুল

 

এক লহমায় চুরমার হয়ে গেলো সব,
ভুলে ভরা জীবনটাকে
শুধরে নেয়ার
সময় দিলে না তুমি।

একই পৃথিবীর জনারন্যের ভীড়ে
স্মৃতি হাতড়ে চলেছি দুজন।
একই সূর্যের আলোয়,ক্লান্তি জুড়াতে
দু’দন্ড ফুরসৎ নেই কারও।।

চন্দ্রমার মোহাচ্ছন্ন পূর্ণিমা
হাতছানি দিয়ে ডাকে আমায়
বেদনা বিধুর মেঘমল্লার তানে,
আবেশে আচ্ছন্ন আবেগ
আমি ছুঁতে পারিনা তোমায়।।

লৌকিকতার দায়বদ্ধতা
যে বড়ই প্রকট,যা আমার
সীমিত অভিলাষকেও করে প্রবঞ্চনা।

যে আকাশের বিশালতায়
তুমি, আমি, আমরা ছিলাম
মহাকালের সাক্ষী হয়ে,সেই
আকাশ আজ বেদনার মহাকাব্য হয়ে
ঘিরে রেখেছে তোমায়,আমায়।।

রাতদিন, কিংবা দিনরাত্রির হিসেব
আমার কাছে বড্ড গোলমেলে।
নীল আকাশ, পূর্ণিমা,
সূর্যের আলোয়, ভয়াবহ ক্লান্ত আমি।।

ভাবি এখনো ছোঁয়া হলোনা তোমায়,
শুধরে নেয়া হলো না ভুল সুখগূলো,
শুধরে নেয়া হলো না,সূর্যসমূজ্জল
উজ্জয়নী এই আমাকে, কিংবা
আমাদের ভুলে ভরা জীবনটাকে।।

[সময়কাল-আট আগস্ট বিশে বিশ -রাত 2.10]

লেখক-সুমি শারমিন, কবি,সাহিত্যিক,গবেষক ও সংগীত শিল্প।

আরও পড়ুন