বিজয় গাঁথা

নাজমা বেগম নাজু

একটা নদি
স্বদেশ প্রেমী
রক্তে মাখামাখি।
একটা পাখি
স্বজন প্রেমী
ডানা ভাঙা
রক্ত ধুলোয়
ভীষন মাখামাখি।
একটা কালো রাত—
স্বজন স্বদেশ স্বরুপ হারা
রক্তে ভেসে যায়।
রক্তস্রোতী রক্ত প্রহর
রক্ত সাগর হয়-
দঃখ ভরা নদি
একটি
দুটি
নয়টি মাসের
রক্ত প্লাবন
আকাশ ছোঁয়া ঢেউ।

দুমরে ওঠা বুকের ভেতর
ডুকরে ওঠে কান্না হাহাকার,
একটা হৃদয়
অন্তবিহীন
অযুত নিযুত লক্ষ কোটি
রক্তস্রোতী,সাগর অথৈ
স্বজন আপন
দেশের মাটি হয়।

একটি ইতিহাস—-
রক্তস্নাত,রক্তক্ষত
অশ্রু সাগর হয়।
সেই সাগরে তারানেভা
আকাশ নুয়ে পড়ে
কাঁদে জনমভর।
একটি স্বদেশ
বুকের মাঝে ছলকে ওঠা
রক্ত বহর
রক্ত লেখা নাম।

একটি বিজয়
মহাকালের
অন্তবিহীন স্রোতসীমায়
কালজয়ী এক নাম।
বিজয়লেখার উচ্চারণে
অক্ষরে আর শব্দগাঁথায়
লক্ষ শহীদ
বিদ্ধ বেয়নেট,
ছিন্ন ভিন্ন কত শত নারি
সংখ্যা কত যায়না গোনা
কত দামে বেঁচে থেকেও
মৃতের খাতায় নাম লেখাল ওরা,
বিজয় গাঁথায় পষ্ট লেখা
কত দামে,কত শত রক্ত লেখায়
বুকের নদি শুকিয়ে,অনড়
অশ্রু সরোবরে
কিনতে হলো
বাংলা দেশের নাম।

ডা. কর্নেল নাজমা বেগম নাজু – কবি, সাহিত্যিক ও জাতিসংঘের প্রথম নারী কন্টিনজেন্ট। 

আরও পড়ুন