মিনতি দি

 

তার কথা ভেবেছো কি আর –
কোনদিন তার হৃদয়ের কথা, জীবনের কথা
জেনেছো কি তাকে পুঁছে -?
যা ছিল আঁধার, জ্বলন্ত প্রদীপ, ভাগ্যরেখা তার
অশ্রু-অনলে মিশে ললাট হতে যার
সবই গেছে ধুয়ে মুছে।

আমাদের মিনতি দি…
আজও মনেপড়ে তার কথা
সংসার জীবনে অনেকটা সুখ ছিল সামন্ত পাড়ায়।
হঠাৎ সব তার ভেঙে চুরে যায়
যুদ্ধের নামে লুটপাট নাকি বিধাতার ইশারায়।
ভগবান- ঈশ্বর- আল্লাহকে ডেকেছে
কেউ দেয়নিকো সাড়া –
সে বলে এখন বিধাতা কোথায়
নিয়তি দুয়ারে খাড়া।
বিধাতাকে তেমন মানেনাকো আর মানব ধর্ম তার
অপরাধী যদি মানুষ আজিকে
দোষ কেন বিধাতার!

অনেক ভালোদের ভালোছিল সে বেশ
সেখানেই কী আর শেষ…!
উন্নত গ্রীবা, পাহাড়ের মত নাক, ছিল বেণীর বাহার
বসন্ত বেলায় বাংলা মায়ের মত
শ্যামল সু্ন্দর সবটুকু রূপ যেন
নেহাত রয়েছিল তার।

বসবাস তার অজ পাড়াগাঁয়
তার কথা কি আজও ভোলা যায়-!
মিনতি আমাদের গৌরব গাঁথা
মাতৃভূমি জননীর মত।
তারও রয়েছে একাত্তরে প্লাবিত রক্তের ক্ষত।
তার কথা কী ভেবেছো তোমরা
আমি ভাবি বারবার-
মিনতি দি কয়…
মানুষ যদি খায় মানুষের রক্ত বিধাতা কে আবার!

 

সাবের রাহী- কবিও গবেষক । 

আরও পড়ুন