মুহূর্তের বিশদ সান্ত্বনা

-মুজতাহিদ ফারুকী

তোমার চোখের জোছনায় ভেসে উঠি, হেসে উঠি
ইরাবতী শুশুকের মসৃণ ত্বকের মাদকে।
প্রাত্যহিক কাটাছেঁড়া, হার্ট ব্লক, বিষফোঁড়া, রাষ্ট্রিক শুদ্ধ অনাচার
সম্পর্কের উপকূলে যখন টাটিয়ে ওঠে অসহ্য দহনে
ঘোড়ার শবের তীব্র পচা গন্ধ নির্বাত নিস্তব্ধ স্থবিরে
তখন পায়ের ছাপের মাপে ক্ষয়ে যাওয়া অধীর চপ্পলে
অনিচ্ছু চাপল্য তুলে তবু ছুটে আসি, মলিন তোমাকে বারবার
ক্বাবার হারাম করে ঘুরি ঘুরি ঘুরি, নৈঃসঙ্গআপন্ন ঘৃণ্য নাছোড় দোসর,
কাফেলার ধসে পড়া শ্রান্ত উট, শেষ বিশ্রামের আগে বলতে পারি না
ক্ষমা কোরো দিন শেষে নবপত্রহীন অর্চনার ব্যর্থ আয়োজন,
অপ্রস্তুত খাবার টেবিল।
লিফটের স্বয়ংক্রিয় ডোরে চাপ খেয়ে একটি অবুঝ টিকটিকি
সহসা চিড়েচ্যাপটা হলে কার কিবা এসে যায় বলো?
আসন্ন প্রতিপদে আমাদের চোখের বিষাদে
যদি ফোটে একবিন্দু জলের করুণা
সেইটুকু সমস্বরে গাওয়া প্রিয় গান, হয়ে থাক
হাসিখুশি মুহূর্তের বিশদ সান্ত্বনা!

মুজতাহিদ ফারুকী কবি, সাহিত্যিক ও সাংবাদিক।

আরও পড়ুন