দুপুর শেষের কাব্যে আঁকা

নাজমা বেগম নাজুঃ

বছর শুরুর কথা বলি,
একটি বছর শুরুর কথা।
দুপুর শেষের কাব্যে আঁকা
একটি অপলক দেশের কথা।
মাঝরাতের অবাধ্য আকাশের মত
যেখানে মাটি গন্ধা
জোছনারা নামে রোজ,
কথক বাতাসের ধ্রুপদী ধুলোয়
আসে বোশেখ
চাঁদরাতে নিংড়ানো হৃদয়ের মত।
চৈত্রশেষের ঝরা পাতায় কেঁপে ওঠে
বোশেখ শুরুর আহ্বান।
সাঁঝবাতির ম্লান আলোয়
পিঠখোলা অবোধ কিশোরের
রাখালিয়া  সন্ধার মত
এখানে বোশেখ আসে।
বৈশাখী ঝড়ে ঝরে পড়া
সুঘ্রান মুখর কাচা আমের মত
নিমগ্ন উচ্ছ্বাসে
কেঁপে ওঠে আত্মমগ্ন পৃথিবী আমার।
আসন্ন বরষার ভেজে
জমকলো সবুজে ঢাকা
সহমমত্ববোধের কাঁঠালের বন।
কাঁশবনে নেমে আসে
ধবল মেঘের দল
বেলা অবেলায় শারদী  ঘনঘটায়।
হেমন্তিকা কাব্যগাঁথায়
ফসলী মাঠের চিৎকারে জাগে
আকাশ পাড়ের নকশা আঁকা
মধ্যাহ্ন অবকাশ।
কবে যেন গল্পদাদুর রুপকথা রাতে
টিনের ছাদ জুড়ে নেমেছিল
রাতের শিশির
আপ্লুত সেই সুরে
তীব্র শীতে কেঁপে ওঠে
হৃদয় অতল আজো।
বসন্ত??
ওকে তো কাব্যে বাঁধিনা আর,
অনেক আগেই মন আমার
ভরে গেছে সব ফুলে,
এত সুর
এত কথা
পাখি আর পৃথিবীর সব ফুলে
পথহাঁটা  পৃথিবীর
বারোমাসী পথ চলি,
শীত গ্রীষ্ম শ্রাবনের
মহাকালের।

লেখকঃ কবি ও জাতিসংঘের প্রথম নারী কন্টিনজেন্ট। 

আরও পড়ুন